1. kaiumkuakata@gmail.com : Ab kaium : Ab kaium
  2. akaskuakata@gmail.com : akas :
  3. mithukuakata@gmail.com : mithu :
  4. mizankuakata@gmail.com : mizan :
  5. habibullahkhanrabbi@gmail.com : rabbi :
  6. amaderkuakata.r@gmail.com : rumi sorif : rumi sorif
মঙ্গলবার, ১৮ জানুয়ারী ২০২২, ১১:৪২ পূর্বাহ্ন
বিজ্ঞপ্তিঃ-
প্রতিটি জেলা উপজেলায় প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে। যোগাযোগঃ-০১৯১১১৪৫০৯১, ০১৭১২৭৪৫৬৭৪

তবে এরাই কি সাংবাদিক শাকিব বিপ্লবকে পানিতে চুবিয়ে হত্যা মিশনের সাথে জড়িত?

  • আপডেট সময় বৃহস্পতিবার, ১৫ অক্টোবর, ২০২০
  • ২২৪ বার

আমাদের কুয়াকাটা ডেস্ক।।

ঢাকা ১৫ অক্টোবর ২০২০: তাহলে এরাই কি সাংবাদিক শাকিব বিপ্লবকে পানিতে চুবিয়ে হত্যার মিশনের সাথে জড়িত ছিলো? আজ বুধবার বরিশালের একটি পত্রিকায় ছবিসহ সংবাদ প্রকাশের পর এমন প্রশ্ন আজ গণমাধ্যম অঙ্গনের মাঝে ঘুরপাক খাচ্ছে। তবে শাকিব বিপ্লবের ঘনিষ্টজনরা এই বৈঠকে শাকিবকে জিম্মি করে আনা হয়েছে বলেও মন্তব্য করেছেন। এদিকে ঘটনার পর থেকেই লোকলজ্জায় শাকিবের ফোন বন্ধ রাখা হয়েছে।

সংবাদে বলা আছে ‘বরিশাল সংবাদকর্মীদের মধ্যে বিভাজন সৃষ্টির কারনে গত ১০ অক্টোবর (প্রকৃত ঘটনা ১১ অক্টোবর) সন্ধ্যায় যে উদ্ভূত পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছিল তা ভুল বোঝাবুঝি মাত্র। বিষয়টি অনুধাবন করায় উভয়পক্ষ শান্তিপূর্ন সহাবস্থান করার প্রত্যয় ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার অঙ্গিকারবদ্ধ হয়ে বুধবার সন্ধ্যায় আজকের বার্তা কার্যালয়ে মিলিত হয়।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন সম্পাদক পরিষদের সভাপতি কাজী নাসির উদ্দিন বাবুল ও সম্পাদক এসএম জাকির হোসেন।

তবে ছবিতে যারা ফটোশেসনে দেখা যাচ্ছে তারা হলেন বরিশাল মহানগর ছাত্রদলের এককালের যুগ্ম-আহবায়ক আরেফিন তুষার, মেহেন্দিগঞ্জ ছাত্রদলের তৎকালীন নেতা আল মামুন, সাংবাদিক রিপন হাওলাদার ও এম মোফাজ্জেল।

তবে অভিযোগ রয়েছে আরিফিন তুষার, রিপন হাওলাদার, আল মামুন, এম মোফাজ্জেল কৌশলে ১১ অক্টোবর রাতে শাকিব বিপ্লবকে বরিশাল নগরীর ঐতিহ্যবাহী বিবির পুকুর পাড়ে ডেকে এনে নিয়ে আসেন। কথা বলার একপর্যায়ে বিবির পুকুরের পানিতে ফেলে দেয় সাংবাদিক শাকিব বিপ্লবকে। এরপর সংঘবদ্ধ চক্রের সদস্যরা সাংবাদিক শাকিব বিপ্লবকে পানিতে চুবিয়ে হত্যার চেষ্টা চালায়। এমনকি হত্যা করতে ব্যর্থ হওয়ায় চক্রটি ব্লাকমেইলের কৌশল অবলম্বন করে। অর্থাৎ শাকিব যখন পানি থেকে তীরে ওঠার চেষ্টা করে তখন একটি ভিডিও ধারণ করে চক্রের সদস্যরা। এরপরই ওই রাতেই ফেসবুকে ভিডিও ছেড়ে দেয়। পাশাপাশি একই সময়ে রিপপন হাওলাদারের বিডিক্রাইম নামে একটি অনলাইন নিউজ পোর্টালে ওই ভিডিও আপলোড করে।

সর্বশেষ চক্রের সদস্যসহ তাদের আশ্রয় প্রশয়দাতাদের জিম্মিদশায় রাখা হয় শাকিব বিপ্লবকে। এরপর বর্বর ঘটনা ধামাচাপা দেয়ার মিশনের লক্ষে বুধবার (১৪ অক্টোবর) রাতে পানিতে চুবিয়ে হত্যা চেষ্টাকারীদের সঙ্গে শাকিবকে একটি পত্রিকা অফিসে বৈঠকে বসানো হয়। পরবর্তীতে ভুল বুঝাবুঝির অবসান ঘটানোর কথা বলে বিভিন্ন মাধ্যমে হত্যাচেষ্টাকারীদের সঙ্গে সাংবাদিক শাকিব বিপ্লবের একটি ফটোশেসনের ছবি ছেড়ে দেয়া হয়।

এদিকে শাকিব বিপ্লবের পক্ষ থেকে ঘটনার বিচার চেয়ে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছিলো। এহেন ন্যাক্কারজনক ঘটনার সাথে জড়িতদের বিচারের দাবিতে বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরামের কেন্দ্রীয় কমিটির পক্ষ থেকে সভাপতি শহীদুল ইসলাম পাইলট ও সাধারণ সম্পাদক আহমেদ আবু জাফর বুধবার একটি বিবৃতি গণমাধ্যমে পাঠান। নেতৃবৃন্দ পুনরায় বিবৃতি পাঠিয়ে ঘটনার সুস্ঠু তদন্ত করে দৃষ্টান্তমূলক বিচারের আশা করেন যাতে এরুপ ঘটনার পুনরাবৃত্তি না ঘটে যেমনটি বরিশালের সাংবাদিকরা আশা করেন।

আপনার ফেইসবুকে শেয়ার করুন।

এরকম আরো খবর

পটুয়াখালী অগ্নিকাণ্ডে চারটি দোকান পুড়ে ছাই। পটুয়াখালী প্রতিনিধি।। পটুয়াখালী ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের সহকারী পরিচালক মো. জাকির হোসেন জানান, সোমবার রাত ৩টার পরে হঠাৎ করে শহরের কেন্দ্রীয় ঈদগাহ মাঠ এলাকা থেকে অগ্নিকাণ্ডের খবর আসে। খবর পেয়ে দ্রুত ফায়ার সার্ভিসের একটি দল ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়। দীর্ঘক্ষণের চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। কিন্তু ততক্ষণে খাদিজার চায়ের দোকান, হানিফ মিয়ার গ্যাস সিলিন্ডারের দোকান, মালেক মিয়ার মুদি দোকান ও জাহাঙ্গীর নামের একজনের দোকান পুড়ে যায়। অগ্নি কান্ডে প্রায় ২০ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে দাবি করেন ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীরা। তবে আগুন লাগার কারণ ও ক্ষয়ক্ষতির বিষয়ে তাৎক্ষণিকভাবে কিছু জানাতে পারেনি পটুয়াখালী ফায়ার সার্ভিস।

© এই সাইটের কোন নিউজ/ অডিও/ভিডিও কপি করা দন্ডনিয় অপরাধ।
Created By Hafijur Rahman akas