1. kaiumkuakata@gmail.com : Ab kaium : Ab kaium
  2. akaskuakata@gmail.com : akas :
  3. mithukuakata@gmail.com : mithu :
  4. mizankuakata@gmail.com : mizan :
  5. habibullahkhanrabbi@gmail.com : rabbi :
  6. amaderkuakata.r@gmail.com : rumi sorif : rumi sorif
শনিবার, ১৯ জুন ২০২১, ০১:১০ পূর্বাহ্ন
বিজ্ঞপ্তিঃ-
প্রতিটি জেলা উপজেলায় প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে। যোগাযোগঃ-০১৯১১১৪৫০৯১, ০১৭১২৭৪৫৬৭৪
শিরোনামঃ-
অন্যের স্ত্রী নগদ টাকা ও স্বর্নালঙ্কার চুরি; কলাপাড়ায় কথিত সাংবাদিকের নামে সমন জারি কলাপাড়া আন্ধার মানিক নদীর মোহনায় জলদস্যু জোংলা শাহালম বাহিনী কর্তৃক ট্রলার ডাকাতি, অপহরণ-১। কুয়াকাটায় ক্ষুদ্র পর্যটন ব্যবসায়ীদের স্থায়ী মার্কেটের দাবীতে মানববন্ধন। করুণা কালীন সময়ে সাধারণ জনগণের কথা চিন্তা করে বিভিন্ন ব্যাংক সংস্থার খিস্তি ও লোন পরিশোধ না করার জন্য নির্দেশনা। মইহ্যা পলানের অত্যাচারে দিশেহারা এলাকাবাসী। কাউন্সিলর ও মেয়রের সাথে বাকবিতন্ডা, কুয়াকাটায় অর্ধশতাধিক অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ রামু উপজেলা নির্বাচন অফিসার সহ ৪ জনের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা কুয়াকাটায় পর্যটক ও আবাসিক হোটেল মালিককে জরিমানা পটুয়াখালীতে সনামধন্য ব্যবসায়ীকে হয়রানি মূলক,ও মিথ্যা তথ্য প্রচারের প্রতিবাদে সংবাদিক সম্মেলন! থানায় জমির শালিশ বসবে না-ডাকাতদের জামিন করাবেন না-পাইকগাছায় আইনজীবিদের সাথে ওসির মতবিনিময়। পাইকগাছা জগদ্বিবিখ্যাত বিজ্ঞানী প্রফুল্লচন্দ্র রায়ের মহা প্রয়াণ দিবসপালিতঃপ্রতিকৃতিতে মাল্যদান– পাইকগাছায় জেলা বিএনপির উদ্যোগে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ

সকল ত্রাণ থেকে বঞ্চিত ইউসুবের পরিবার।

  • আপডেট সময় রবিবার, ১১ অক্টোবর, ২০২০
  • ২১২ বার

কলাপাড়া উপজেলা প্রতিনিধি।।

কলাপাড়ার ডালবুগন্জ ইউনিয়নে ৯ নং ওয়ার্ডে দীর্ঘ দিন ধরে বসবাস করে আসছে ইউসুফ, বাবা শাহজাহান দুই ছেলের বাবা ইউসুফ। শত শত ইউনিয়ন পরিষদের সরকারী ত্রাণ সামগ্রী থাকলে ও ভাগ্যে জোটেনা হয়ত ইউপি সদস্যদের চাহিদা অনুযায়ী টাকা না দিতে পাড়ায় সব অনুদান থেকে বঞ্চিত ইউসুফ কর্মরত অবস্থান বিশাক্ত ইদুঁরের কামরে পায়ে পচন ধরে দীর্ঘ ছয় মাস যাবত ভোগেন পায়ের পচনে। বরিশাল ইসলামিয়া হাসপাতালে দীর্ঘ দিন ভর্তি ছিলো এতে বাসার আসবাবপত্র ভিটে মাঁটি শেষ হবার অবস্থায় এসে পৌঁছেন ইউসুফ ৮ মাস যাবত কাজ করতে না পাড়ায় দুই ছেলে ও স্ত্রীকে নিয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছেন।

ইউসুফ বলেন, আমার ভোটার আইডি কার্ড আছে আমার ইউনিয়ানের আমি কখনো সরকারি অনুদানের চিন্তা করিনী আমি খেঁটেই আমার সংসার চালাচ্ছি। কিন্ত আমার কপাল খারাপ করোনা ভাইরাসে কয়েক মাস কাজ না পেয়ে বসে থাকতে হয়েছে করোনা ভাইরাস একটি শিথিল হলে স্বাস্থ্যবিধি মেনে কাজ করি দুইদিন কাজ করার পড়ে হঠাং বিশাক্ত ইঁদুর আমাকে কামড় দিলে আমার পায়ে পচন ধরে আমার যা কিছু আছে সব বিক্রি করে আমার পায়ের চিৎকিসা করি। আমার দৈনিক ৫০০ টাকার ওষুধ খরচ হয় ধার কর্য করে কোন মতে দিন পার করছি আমার এলাকার সবাই জানে আমার এই মূহুর্তে একটা সরকারি অনুদানের খুব প্রয়জন ছিলো কিন্তু অনুদান ত দুরের কথা আমার খোঁজ খবর ও নেবার কেউ নেই আমি আমার কস্টের কথা সমাজে তুলে ধরলাম আমি এত অসহায় থাকা মানুষটি যদি ত্রাণ না পাই তা হলে সরকারের এই অনুদান কার জন্য প্রশ্ন তুলে দিলাম এই সমাজের মানুষের কাছে।

আমির হোসেন বলেন, আমার ৩ টি সন্তান প্রতিবন্ধী নাম ত দুরের কথা ইউনিসেফ এই অনুদানের কথা আমি জানিনা।

শামিমের পরিবার জানান, আমার একটা ছেলে আছে দশ বছরের হাটঁতে পাড়েনা আমরা এই ইউনিসেফের ত্রাণ থেকে বঞ্চিত। এলাকাবাসী জানান, ইউনিসেফের একটি অনুদান দুস্থ অসহায় দের মাঝে বিতরনের জন্য ইউপি সদস্যদের মাধ্যমে একশত তালিকা করার নির্দেশ দেন ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান সেখানে চেয়ারম্যান প্রতিবন্ধী ও বিধবাদের উপরে গুরুপ্ত দিয়ে লিস্ট তৈরি করতে বলেন কিন্তু ইউপি সদস্যরা টাকার বিনিময় স্বজনপ্রীতি করে প্রতিবন্ধী ও বিধবাদের বাদ দিয়ে এলাকার সচল লোকদের টাকার বিনিময় এই অনুদান পায়িয়ে দেন ইউপি সদস্যরা এতে ক্ষীপ্ত হয়ে এলাকাবাসী বলেন বার বার এই কাজটি করছে ইউপি সদস্যরা যাদের টাকা আছে তারা ইউপি, সদস্যদের দিলেই তারা ত্রাণ পায়ে আর আমরা যারা ত্রাণ পাওয়ার কথা আমরা বঞ্চিত হই।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও চেয়ারম্যানের কাছে দাবী আমরা অসহায়রা কিভাবে ত্রাণ পেতে পাড়ি এর একটা ব্যাবস্তা করে দেবার।

আপনার ফেইসবুকে শেয়ার করুন।

এরকম আরো খবর
© এই সাইটের কোন নিউজ/ অডিও/ভিডিও কপি করা দন্ডনিয় অপরাধ।
Created By Hafijur Rahman akas