1. kaiumkuakata@gmail.com : Ab kaium : Ab kaium
  2. akaskuakata@gmail.com : akas :
  3. mithukuakata@gmail.com : mithu :
  4. mizankuakata@gmail.com : mizan :
  5. habibullahkhanrabbi@gmail.com : rabbi :
  6. amaderkuakata.r@gmail.com : rumi sorif : rumi sorif
শনিবার, ১৯ জুন ২০২১, ১২:৪৫ পূর্বাহ্ন
বিজ্ঞপ্তিঃ-
প্রতিটি জেলা উপজেলায় প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে। যোগাযোগঃ-০১৯১১১৪৫০৯১, ০১৭১২৭৪৫৬৭৪
শিরোনামঃ-
অন্যের স্ত্রী নগদ টাকা ও স্বর্নালঙ্কার চুরি; কলাপাড়ায় কথিত সাংবাদিকের নামে সমন জারি কলাপাড়া আন্ধার মানিক নদীর মোহনায় জলদস্যু জোংলা শাহালম বাহিনী কর্তৃক ট্রলার ডাকাতি, অপহরণ-১। কুয়াকাটায় ক্ষুদ্র পর্যটন ব্যবসায়ীদের স্থায়ী মার্কেটের দাবীতে মানববন্ধন। করুণা কালীন সময়ে সাধারণ জনগণের কথা চিন্তা করে বিভিন্ন ব্যাংক সংস্থার খিস্তি ও লোন পরিশোধ না করার জন্য নির্দেশনা। মইহ্যা পলানের অত্যাচারে দিশেহারা এলাকাবাসী। কাউন্সিলর ও মেয়রের সাথে বাকবিতন্ডা, কুয়াকাটায় অর্ধশতাধিক অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ রামু উপজেলা নির্বাচন অফিসার সহ ৪ জনের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা কুয়াকাটায় পর্যটক ও আবাসিক হোটেল মালিককে জরিমানা পটুয়াখালীতে সনামধন্য ব্যবসায়ীকে হয়রানি মূলক,ও মিথ্যা তথ্য প্রচারের প্রতিবাদে সংবাদিক সম্মেলন! থানায় জমির শালিশ বসবে না-ডাকাতদের জামিন করাবেন না-পাইকগাছায় আইনজীবিদের সাথে ওসির মতবিনিময়। পাইকগাছা জগদ্বিবিখ্যাত বিজ্ঞানী প্রফুল্লচন্দ্র রায়ের মহা প্রয়াণ দিবসপালিতঃপ্রতিকৃতিতে মাল্যদান– পাইকগাছায় জেলা বিএনপির উদ্যোগে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ

বীমা করা না থাকলেও মোটরযান বা মালিকের বিরুদ্ধে মামলা না করতে পুলিশকে চিঠি দিয়েছে (বিআরটিএ)-কর্তৃপক্ষ।

  • আপডেট সময় রবিবার, ৪ অক্টোবর, ২০২০
  • ১৮০ বার

আমাদের কুয়াকাটা ডেস্কঃ বিআরটিএ সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে, গত ৩০ সেপ্টেম্বর কোনো মোটরযানের বীমা করা না থাকলেও ওই মোটরযান বা তার মালিকের বিরুদ্ধে মামলা না করে এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার অনুরোধ জানিয়ে পুলিশকে চিঠি দিয়েছে বিআরটিএ।

চিঠিতে বলা হয়, ১৯৮৩ সালের মোটরযান অধ্যাদেশের ১০৯ ধারা অনুযায়ী যানবাহনের জন্য তৃতীয় পক্ষের ঝুঁকি বীমা বাধ্যতামূলক ছিল। ওই আইনের ১৫৫ ধারায় এ জন্য দণ্ডেরও বিধান ছিল। কিন্তু ২০১৮ সালের সড়ক পরিবহন আইনের ধারা ৬০ এর ১, ২ ও ৩ উপধারা অনুযায়ী মোটরযানের জন্য বীমা বাধ্যতামূলক নয়।

উপধারা ১ এ বলা হয়েছে, কোনো মোটরযান মালিক বা প্রতিষ্ঠান ইচ্ছা করলে তার মালিকানায় থাকা যে কোনো মোটরযানের জন্য যে সংখ্যক যাত্রী পরিবহনের জন্য নির্দিষ্ট করা তাদের জীবন ও সম্পদের বীমা করতে পারবেন।

উপধারা ২ অনুযায়ী, মোটরযানের মালিক বা প্রতিষ্ঠান তাদের অধীনে পরিচালিত মোটরযানের জন্য নিয়ম অনুযায়ী বীমা করবেন এবং মোটরযানের ক্ষতি বা নষ্ট হওয়ার বিষয়টি বীমার আওতাভুক্ত থাকবে। বীমাকারী উপযুক্ত ক্ষতিপূরণ পাবেন।

উপধারা ৩ এ বলা হয়েছে, মোটরযান দুর্ঘটনায় পড়লে বা ক্ষতিগ্রস্ত হলে বা নষ্ট হলে ওই মোটরযানের জন্য ধারা ৫৩ অনুযায়ী গঠিত তহবিলের অধীনে গঠিত আর্থিক সহায়তা তহবিল থেকে কোনো ক্ষতিপূরণ দাবি করতে পারবেন না।

আইনের বিষয়টি উল্লেখ করে চিঠিতে বলা হয়েছে, এ ধারা অনুযায়ী তৃতীয় পক্ষের ঝুঁকি বীমা বাধ্যতামূলক নয় এবং এই আইনের অধীনে তা লঙ্ঘন হলেও কোনো দণ্ডের বিধান নেই। তৃতীয় পক্ষের ঝুঁকি বীমা না থাকলে মোটরযান বা মোটরযানের মালিকের বিরুদ্ধে সড়ক পরিবহন আইন ২০১৮ অনুযায়ী কোনো মামলা দেওয়ার সুযোগ নেই।

বিষয়টি সংশ্লিষ্ট সবাইকে অবগত করার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে অনুরোধ জানানো হয়েছে ওই চিঠিতে।

আপনার ফেইসবুকে শেয়ার করুন।

এরকম আরো খবর
© এই সাইটের কোন নিউজ/ অডিও/ভিডিও কপি করা দন্ডনিয় অপরাধ।
Created By Hafijur Rahman akas