1. kaiumkuakata@gmail.com : Ab kaium : Ab kaium
  2. akaskuakata@gmail.com : akas :
  3. mithukuakata@gmail.com : mithu :
  4. mizankuakata@gmail.com : mizan :
  5. habibullahkhanrabbi@gmail.com : rabbi :
  6. amaderkuakata.r@gmail.com : rumi sorif : rumi sorif
মঙ্গলবার, ১৬ অগাস্ট ২০২২, ১১:০৭ অপরাহ্ন
বিজ্ঞপ্তিঃ-
প্রতিটি জেলা উপজেলায় প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে। যোগাযোগঃ-০১৯১১১৪৫০৯১, ০১৭১২৭৪৫৬৭৪

কলাপাড়ায় দুই কিলোমিটার রাস্তার উন্নয়ন কাজ বন্ধজনদুর্ভোগ চরমে।।

  • আপডেট সময় মঙ্গলবার, ১৮ মে, ২০২১
  • ১৮৭ বার


বিশ্বাস শিহাব পারভেজ মিঠু, কলাপাড়া প্রতিনিধিঃ
পটুয়াখালীর কলাপাড়া উপজেলার ধানখালী ইউনিয়নে লোন্দা গ্রামে একটি সড়ক পাকাকরন কাজ বন্ধ থাকায় জনসাধারনের দুর্ভোগ চরমে উঠেছে। কাজ শুরু করার পর রাস্তার মাঝখানের মাটির বেড কেটে দু’পাশে ফেলে রেখে সংশ্লিষ্ট ঠিকাদার লাপাওা। স্থানীয় সরকার প্রকৌশল
অধিদপতরের দু’মাস পর্যন্ত কাজ বন্ধ থাকায় কৃষক ও সাধারন মানুষের ভোগান্তি বেড়েছে।
স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপতরের(এলজিইডি) উপজেলা কার্যালয় সুত্রে জানা যায়, দুই কিলোমিটার দীর্ঘ এ সড়কটি প্রায় দুই মাস আগে ঠিকাদারকে কার্যাদেশ দেয়া হয়েছে। নতুন করে যে রাস্তাটি নির্মিত হচ্ছে তার ব্যয় ধরা হচ্ছে এক কোটি ৮৮ লাখ টাকা।
সরেজমিন দেখা গেছে, লোন্দা গ্রামে মাটির কাঁচা রাস্তা পাকাকরন করার জন্য দু’মাস আগে ঠিকাদারকে কার্যাদেশ দেয়া হয়েছে। অথচ এই রাস্তা ব্যবহার করে প্রতিদিন শত শত মানুষকে নিত্যপ্রয়োজনীয় কাজের জন্য উপজেলা সদরের সাথে যাতায়াত করতে হয়। ওই রাস্তা দিয়ে প্রতিদিন গড়ে এক হাজার লোক দু’টি তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্র যাতায়াত করে। ঠিকাদার রাস্তার মাঝখানের মাটি কেটে দু’পাশে ফেলে রেখেছে। গত তিন-চার ধরে বৃষ্টিতে এখন পানি জমে মিনি পুকুরের মত হয়ে গেছে। কোনো কোনো জায়গা কোমর সমান আবার কোন জায়গা হাঁটু সমান পানি জমা হয়ে থাকছে সড়কটিতে।স্থানীয়রা জানান, বিকল্প রাস্তা না থাকায় এটি আমাদের যাতায়াতের একমাত্র রাস্তা। আগে মাটির রাস্তা ছিল আমরা কষ্টে যাতায়াত করছিলাম। কিন্তু উন্নয়ন নামে দীর্ঘকাল সেই রাস্তায় মাটি কেটে বালি না ফেলে এখন পানি জমে পুকুরের মত তৈরি হয়েছে। আমাদের হেঁটে
চলাফেরাই এখন কষ্টসাধ্য। লোন্দা গ্রামের মো.শহিদুল আলম জানান, এই এলাকা খুবই অবহেলিত এলাকা। প্রতিদিন গড়ে
এক হাজার লোক দু’টি তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্র যাতায়াত করে। প্রায় আড়াই মাস ধরে কাজটি পড়ে রয়েছে। বর্তমানে ৩/৪ ফুট পানি জমা হয়ে আছে। এলাকার লোকজনের চলাচল করতে খুবই
দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। পটুয়াখালীর ঠিকাদার প্রতিষ্টান মের্সাস দেলোয়ার হোসেন টের্ডাসের মালিক মো.দেলেয়ার হোসেন জানান, স্থানীয় লোকজনের বালি নিয়ে ঝামেলার কারনে কাজে বিলম্ব হয়েছে। ওই গ্রামের লোকজন বালির রেট বেশি চাচ্ছে । তার পর আমি বালি নেয়ার ব্যবস্থা করছি। কলাপাড়া স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি) প্রকৌশলৗ মো. মোহর আলী জানান, ঠিকাদার কাজ করতে চায় কিন্তু স্থানীয় লোকজন ঠিকাদারকে বালির পাইপ পর্যন্ত জমি দিয়ে নিতে দেয় না। তাহলে ঠিকাদার কিভাবে কাজ করবে। এজন্য কাজের ধির গতি।

#

আপনার ফেইসবুকে শেয়ার করুন।

এরকম আরো খবর
© এই সাইটের কোন নিউজ/ অডিও/ভিডিও কপি করা দন্ডনিয় অপরাধ।
Created By Hafijur Rahman akas
x