1. kaiumkuakata@gmail.com : Ab kaium : Ab kaium
  2. akaskuakata@gmail.com : akas :
  3. mithukuakata@gmail.com : mithu :
  4. mizankuakata@gmail.com : mizan :
  5. habibullahkhanrabbi@gmail.com : rabbi :
  6. amaderkuakata.r@gmail.com : rumi sorif : rumi sorif
মঙ্গলবার, ১৫ জুন ২০২১, ১২:৩৩ অপরাহ্ন
বিজ্ঞপ্তিঃ-
প্রতিটি জেলা উপজেলায় প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে। যোগাযোগঃ-০১৯১১১৪৫০৯১, ০১৭১২৭৪৫৬৭৪
শিরোনামঃ-
অন্যের স্ত্রী নগদ টাকা ও স্বর্নালঙ্কার চুরি; কলাপাড়ায় কথিত সাংবাদিকের নামে সমন জারি কলাপাড়া আন্ধার মানিক নদীর মোহনায় জলদস্যু জোংলা শাহালম বাহিনী কর্তৃক ট্রলার ডাকাতি, অপহরণ-১। রাজবাড়ীতে বিষাক্ত ইনজেকশন দিয়ে যৌন কর্মীকে হত্যা । বঙ্গোপসাগরে নৌ পুলিশের অভিযানে ১৬ জেলে আটক, ৪ ট্রলার মালিককে জরিমানা । কলাপাড়া উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মৎস্য বন্দর আলিপুরে ট্রলার মালিক ও মাঝি সমিতির বিক্ষোভ মিছিল মহিপুরে কোস্ট গার্ডের অভিযান,২ লাখ ৫০ হাজার বাগদা চিংড়ি রেনু জব্দ কুয়াকাটায় বিশ্ব সমুদ্র দিবসে জীব বৈচিত্র্য রক্ষার দাবি। ‘ও কিসের সাংবাদিক’? রাঙ্গাবালীতে প্রকাশ্য দিবালোকে ব্যবসায়ীর ১ লক্ষ ৭০ হাজার টাকা ছিনতাই রাজবাড়ীতে স্বেচ্ছাসেবক লীগের পক্ষ থেকে বাজেট কে স্বাগত জানিয়ে গোয়ালন্দে আনন্দ মিছিল অনুষ্ঠিত হয় রাজবাড়ীতে গোয়ালন্দে গুরু খামারিদের মাঝে প্রদর্শনী ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠিত হয় কলাপাড়ায় প্রানীসম্পদ প্রদর্শনীর উদ্বোধন অনুষ্ঠিত ॥

বরগুনায় অতিদরিদ্র কর্মসংস্থান কর্মসূচিতে দূর্ণীতি -অনিয়ম

  • আপডেট সময় শনিবার, ৮ মে, ২০২১
  • ৬৫ বার

সাইফুল ইসলাম জুলহাস, স্টাফ রিপোর্টার:
বরগুনায় ২০২০-২১ অর্থ বছরে অতিদরিদ্রদের জন্য কর্মসংস্থান কর্মসূচি (ইজিপিপি) এর আওতায় ১ম পর্যায়ের বাস্তবায়নযোগ্য প্রকল্পের অধীনে বরগুনা সদর উপজেলার ১০ টি ইউনিয়নে সর্বমোট ১১৬৭ জন অতিদরিদ্রের জন্য ৯৩ লাখ ৩৬ হাজার টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। এই প্রকল্পকে ঘিরে দূূর্ণীতি আর অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

বরগুনা সদর উপজেলার ১০ ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকা সরেজমিনে ঘুরে জানা যায়, প্রকল্পে নির্দিষ্ট ৪০ দিন অনুযায়ী অধিকাংশ প্রকল্পে কাজ হয়নি। এতে সুবিধা থেকে বঞ্চিত হয়েছেন অতিদরিদ্র অনেক নারী ও পুরুষ। সূত্রে জানা যায়, ইতোমধ্যে সম্পূর্ন বিল উত্তোলন করে নিয়েছেন প্রকল্পের সাথে সংশ্লিষ্টজনরা। দৈনিক হিসেবে কাজ করানোর কথা থাকলেও বিভিন্ন প্রকল্পে যেটুকু কাজ হয়েছে স্থানীয় শ্রমিকদের দিয়ে কাজ না করিয়ে অন্য এলাকা থেকে শ্রমিিক এনে চুক্তিতে কাজ করানো হয়েছে।

সদর উপজেলার বরগুনা ইউনিয়নের ৩ নং ওয়ার্ডের চাঁদের হাট ব্রীজ হতে পশ্চিম দিকে ওয়ারেচ আলী হাওলাদার বাড়ির কালভার্ট পর্যন্ত মাটির রাস্তা পূন:নির্মান প্রকল্পে ৬৯ জন শ্রমিকসহ ৫ লাখ ৫২ হাজার টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়। সরেজমিনে দেখা যায়, এ প্রকল্পে আদৌ কোন কাজই হয়নি। ওই একই ইউনিয়নের ৬ নং ওয়ার্ডের ইউনুচ মাষ্টারের বাড়ি হতে পশ্চিম দিকে টুনু মিয়ার বাড়ি হয়ে পৌরসভার সীমানার কালভার্ট পর্যন্ত মাটির রাস্তা পূন:নির্মান কাজে শ্রমিক সংখ্যা ২৫ জন ও ২ লাখ টাকা বরাদ্দ।

এলাকার আবদুস সালামের কাছ থেকে জানা যায়, এ প্রকল্পে কাজ হয়েছে মাত্র ৩ দিন। ২০ জন শ্রমিক দিয়ে ২ দিন ও ভেকু দিয়ে ১ দিন কাজ হয়েছে চুক্তিতে।

অধিকাংশ ইউনিয়নের প্রকল্প ঘুরে একই চিত্র পরিলক্ষিত হয়েছে।

স্হানীয়রা বলেন, আমরা সত্য কথা বললে আমাদের বিরুদ্ধে একজোটে হয়ে চাঁদাবাজি সহ মিথ্যা অভিযোগে হয়রানী করা হবে। আপনারা সরেজমিনে দেখলেন কোনটা কাজ হয়েছে, কোথায় অনিয়ম হয়েছে। চোরে চোরে মাসতুতো ভাই, বলে মন্তব্য করেন এলাকাবাসী।

এ বিষয় জানতে চাইলে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকতা মোঃ ওয়ালি উল্লাহ্ বলেন, কাজ সুষ্ঠুভাবেই সম্পন্ন হয়েছে এবং শ্রমিকদের বিল তাদের নিজস্ব একাউন্টে দেয়া হয়েছে। যদি অভিযোগ থাকে তাহলে ইউএনও স্যারের মাধ্যমে তদন্ত কমিটি গঠন করে যদি অভিযোগ প্রমানিত হয় তাহলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এ ব্যাপারে সদ্য বিদায়ী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাসুমা আক্তার বলেন, অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেলে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আপনার ফেইসবুকে শেয়ার করুন।

এরকম আরো খবর
© এই সাইটের কোন নিউজ/ অডিও/ভিডিও কপি করা দন্ডনিয় অপরাধ।
Created By Hafijur Rahman akas