1. kaiumkuakata@gmail.com : Ab kaium : Ab kaium
  2. akaskuakata@gmail.com : akas :
  3. mithukuakata@gmail.com : mithu :
  4. mizankuakata@gmail.com : mizan :
  5. habibullahkhanrabbi@gmail.com : rabbi :
  6. amaderkuakata.r@gmail.com : rumi sorif : rumi sorif
শনিবার, ১৫ মে ২০২১, ১১:৩৮ অপরাহ্ন
বিজ্ঞপ্তিঃ-
প্রতিটি জেলা উপজেলায় প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে। যোগাযোগঃ-০১৯১১১৪৫০৯১, ০১৭১২৭৪৫৬৭৪
শিরোনামঃ-
অন্যের স্ত্রী নগদ টাকা ও স্বর্নালঙ্কার চুরি; কলাপাড়ায় কথিত সাংবাদিকের নামে সমন জারি কলাপাড়া আন্ধার মানিক নদীর মোহনায় জলদস্যু জোংলা শাহালম বাহিনী কর্তৃক ট্রলার ডাকাতি, অপহরণ-১। পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে বরগুনার এমপি ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভু’র ঈদ শুভেচ্ছা কলাপাড়ায় ১৭৫০`শ পরিবারের মাঝে এমপি মহিব্বুর রহমানের ত্রান বিতরন। অসহায় হতদরিদ্র মানুষের জন্য আমরা স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের উদ্যোগে ঈদ সামগ্রী বিতরণ।। রামুতে বিয়ারসহ এক মাদক কারবারীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১৫। লক্ষ্মীপুরে-কমলনগর বাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন বীথিকা বিনতে হোসাইন। ৬ নং বুড়িরচর ইউনিয়নবাসিকে জানাই পবিত্র ঈদ-উল-ফিতরের অগ্রিম শুভেচ্ছা কক্সবাজার লিংক রোড মেরিন হাসপাতালে এর এমডি ফেরদৌসের,উদ্যোগে ইফতারের , কক্সবাজার জেলার উখিয়া থানাধীন কুতুপালং এলাকায় অভিযান চালিয়ে আনুমানিক।। কুয়াকাটা তরুণ মেধাবী কাউন্সিলর শহিদ দেওয়ানের ঈদ বস্ত্র বিতরণ পটুয়াখালীতে বজ্রপাতে নিহত ২.

মহিপুরে আইনকে পুঁজি করে সাধারন মানুষকে ফাঁসানোর অভিযোগ।

  • আপডেট সময় বৃহস্পতিবার, ১৫ এপ্রিল, ২০২১
  • ৬৬ বার

মোঃ জাহিদ কুয়াকাটা (পটুয়াখালী) প্রতিনিধিঃ

‌সরকারের প্রচালিত আইন সাধারন মানুষের রক্ষাকবচ। সেই আইনকেই পুঁজিকরে সমাজের কিছু মানুষ করছে প্রকাশ্যে চাঁদাবাজি। কেউ কেউ আইনের অপপ্রয়োগ করে নিরাপরাধ সাধারন মানুষকে ফাঁসিয়ে করছে অর্থ আদায়ের পায়তারা। মহিপুর থানার ডালবুগঞ্জ ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ডে চলছে আইন অপপ্রয়োগ। এমনি আইনের অপপ্রয়োগ করে নিরাপরাধ মানুষকে ফাঁসানোর অভিযোগ পাওয়া যায় ৯ নং ওয়ার্ডে শুখডুগী বাঁধঘাট এলাকায়। জানাযায়, গত ১৩ ই এপ্রিল (মঙ্গলবার) আনুমানিক রাত ২ টা ৩০ মিনিটের দিকে রহস্যজনক ভাবে মোঃ সাদেক মুসুল্লির ঘরে প্রবেশ করে তার যুবতী কন্যাকে (২৪) ধর্ষনের চেষ্টা ও ১ লাখ ২০ হাজার টাকা লুটের অভিযোগ করেন একই গ্রামের বাসিন্দা মোঃ সিদ্দক মৃধার (৬০) ও মোঃ আয়ুব আলী (৫০) এর বিরুদ্ধে।
সরেজমিনে, ঘটনা আলামত ও প্রতিবেশীদের স্বাক্ষী এই অভিযোগকে রহস্যজনক করে তোলে। অভিযোগের অন্যতম স্বাক্ষী প্রতিবেশী মোঃ রহিম বলেন, রাত আনুমানিক ২ টার দিকে প্রতিবেশি মোঃ সাদেক মুসুল্লির ঘর থেকে আকস্মিক চিৎকার চেঁচামেচি শুনে বাহিরে বের হয়ে তাদের ঘরে উপস্থিত হয়। সেখানে গিয়ে তিনি তার যুবতী কন্যার কাছে এই অভিযোগ জানতে পারেন, কিন্তু তিনি প্রতক্ষ্য ভাবে কারো উপস্থিতি ও আলামত দেখতে পায়নি বলে গনমাধ্যমে জানান। উক্ত গ্রামের বাসিন্দা আঃ করিম (৬৮) জানান, সিদ্দিক মৃধার বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ কখনো শুনিনি, আর এখানে সাদেক ও তার মেয়েরা ছাড়া আর কেউ তাকে দেখেনি। এই অভিযোগ সম্পূর্ন মিথ্যা বলে তিনি দাবি করেন। একই স্থানের বাসিন্দা মোঃ মোসারেফ (৪২) বলেন, গত বছর এই যুবতীর সাথে সিদ্দক মৃধার চাচাত ভাই মোঃ মৃত ফেরদৌস (২৮) এর প্রেমপরিনয় বিবাহ হয়। যেটা মৃত ফেরদৌস এর পরিবার অমতে ছিলেন। যার প্রেক্ষিতে মৃত মোঃ ফেরদৌস নারায়ণগঞ্জ ফতুল্লা বাসা ভাড়া নিয়ে থাকেন। কিন্তু বিবাহের ২৭ দিন পর, গত ২৫ শে মে রাত অনুমান ১:০০ ঘটিকার সময় ফেরদাউস পানি নিতে বাসার বাহিরে আসলে দুর্বিত্তরা তাকে এলোপাথাড়ি কুপিয়ে হত্যা করে। তখন ফেরদৌসের ডাক চিৎকারে পাশের রুমের অনেক প্রতিবেশীরা ছুটে আসলে দুর্বিত্তরা পালিয়ে যায়। কিন্তু মৃত ফেরদৌসের পরিবারের দাবী ঐ ডাক চিৎকারের সময় তার সদ্য বিবাহিত স্ত্রী মোসাঃ সাদিয়া আক্তার (২৪) সে রুমের ভিতরে ছিলো এবং তার স্বামী খুন হওয়ার পরও তাকে ঐ স্থানে দেখা যায় নি। তাই তাদের সন্দেহ ছিলো উক্ত হত্যা কান্ডে তার স্ত্রী’র সংযুক্ত আছেন এবং তাকে আসামী করার জন্য এই মোঃ সিদ্দিক মৃধা অনেক চেষ্টা করছেন, বিধায় সেই পুরোনো শত্রুতার কারনে এই মিথ্যা অভিযোগ করেন।
৯ নং ওয়ার্ড ইউ,পি সদস্য, মোঃ রুহুলামিন বলেন, ইতিপূর্বে মোঃ সিদ্দিক মৃধা এই মেয়েকে একাধিক বার বিভিন্ন মানুষের কাছে বিবাহের প্রস্তাব দিয়েছে বলে তিনি জানেন। কিন্তু সেদিন রাতে কি হয়েছে সে বিষয় পরের দিন সকালে মোঃ সাদেক মুসুল্লি তাকে জানিয়েছন বলে জানান। এবিষয় মঙ্গলবার ১৩ ই এপ্রলি রাতে মহিপুর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন, মোঃ সাদেক মুসুল্লি র যুবতী কন্য (২৪)। অভিযোগ তদন্তে দ্বায়িত্বে থাকা এস,আই সাইদুর রহমান বলেন, উক্ত অভিযোগ তদন্ত স্বপেক্ষে বব্যস্থা গ্রহন করা হবে।
বিশেষ ভাবে উল্লখ্য যে, উক্ত স্থান ৯ নং ওয়ার্ড শুখডুগী বাঁধঘাট ও তার পার্শ্ববর্তী এলাকায় রিতিমতো, এভাবেই পর পর বেশ কয়েকটি ঘটনার স্বীকার হয়েছেন নিরাপরাধ কিছু মানুষ। বিবাহ ধর্মঘট,ধর্ষন চেষ্টা,লুট, বাল্যবিবাহ, সহ প্রচালিত আইনের ভয় দেখিয়ে আদায় করা হচ্ছে কোটি টাকা। আর এটা স্থানীয় একটি সেন্টিগ্রেড মহল দারা পরিচালিত হয় বলে জানাযায়। কিন্তু উক্ত বিষয় বর্তমানে গনমাধ্যমের তথ্য সংগ্রহ অব্যাহত রয়েছে।

মোঃ জাহিদ
কুয়াকাটা (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি
১৫/০৪/২০২১
০১৭১২৩৫০০৩৬

আপনার ফেইসবুকে শেয়ার করুন।

এরকম আরো খবর
© এই সাইটের কোন নিউজ/ অডিও/ভিডিও কপি করা দন্ডনিয় অপরাধ।
Created By Hafijur Rahman akas