1. kaiumkuakata@gmail.com : Ab kaium : Ab kaium
  2. akaskuakata@gmail.com : akas :
  3. mithukuakata@gmail.com : mithu :
  4. mizankuakata@gmail.com : mizan :
  5. habibullahkhanrabbi@gmail.com : rabbi :
  6. amaderkuakata.r@gmail.com : rumi sorif : rumi sorif
সোমবার, ০৪ জুলাই ২০২২, ১২:০০ পূর্বাহ্ন
বিজ্ঞপ্তিঃ-
প্রতিটি জেলা উপজেলায় প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে। যোগাযোগঃ-০১৯১১১৪৫০৯১, ০১৭১২৭৪৫৬৭৪

কুয়াকাটায় শিশু ধর্ষণ, অভিযুক্ত কিশোরের আত্মসমর্পন।।

  • আপডেট সময় রবিবার, ১ মে, ২০২২
  • ৬৬ বার

কুয়াকাটা প্রতিনিধি।।

পটুয়াখালীর কুয়াকাটায় ভাইকে আম গাছের সাথে বেধে রেখে শিশু বোনকে ধর্ষনের অভিযোগ হাচান শরীফ (১৬) নামে এক কিশোরকে আসামী করে থানায় মামলা করে। মামলার পর থেকে পলাতক ছিল ওই কিশোর। এরই প্রেক্ষিতে ওই কিশোরের পরিবারকে পৌর মেয়র চাপ সৃষ্টি করলে পরিবারের লোকজন রবিবার সাড়ে চারটার দিকে ধর্ষক হাসানকে মেয়রের হাতে তুলে দেন। পরে ওই কিশোরকে পুলিশের হাতে তুলে দেন কুয়াকাটা পৌর মেয়র আনোয়ার হাওলাদার। হাচান কুয়াকাটা পৌরসভার ২ নং ওয়ার্ডের ইব্রাহিম শরীফের ছেলে। আটককৃত হাসানকে পুলিশ হেফাজতে রাখা হয়েছে।
স্থানীয় ও মামলা সূত্রে জানা গেছে, বৃহস্পতিবার বিকালে পশ্চিম কুয়াকাটা এলাকার ওই শিশু তার বড় ভাইয়ের (৯) সাথে পাশ্ববর্তী একটি মাছের ঘেরে জিলাপী ফল খেতে যায়। এসময় হাচান ওই শিশুর ভাইকে আম গাছের সঙ্গে রশি দিয়ে বেঁধে রাখে। পরে পাশের ঝোপের মধ্যে নিয়ে ওই শিশুকে জোরপূর্বক ধর্ষন করে। এঘটনায় ওই শিশুর প্রচুর রক্তক্ষরন হলে তাকে কলাপাড়া হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে উন্নত চিকিৎসার জন্য পটুয়াখালী হাসপাতালে প্রেরন করা হয়।
এ ঘটনায় গত বৃহস্পতিবার (২৮এপ্রিল) রাতে ওই শিশুর মা মহিপুর থানায় একটি ধর্ষন মামলা দায়ের করে। মামলা দায়েরের পর থেকে পলাতক ছিল কিশোর হাসান।

কুয়াকাটা পৌর মেয়র আনোয়ার হাওলাদার বলেন, ঘটনার পর কিশোর হাসানের পরিবারকে চাপ সৃস্টির এক পর্যায়ে আমার কাছে আত্মসমর্পণ করে। হাসানকে পুলিশের কাছে তুলে দিয়েছি।

মহিপুর থানার ওসি আবুল খায়ের জানান, অভিযুক্ত কিশোর পৌর মেয়রের কাছে আত্মসমর্পণ করলে মেয়র ধর্ষক হাসানকে আমার হেফাজতে তুলে দেন। বর্তমানে ওই কিশোর থানা হেফাজতে রয়েছে।
###

কুয়াকাটা প্রতিনিধি
০১-০৫-২০২২

আপনার ফেইসবুকে শেয়ার করুন।

এরকম আরো খবর
© এই সাইটের কোন নিউজ/ অডিও/ভিডিও কপি করা দন্ডনিয় অপরাধ।
Created By Hafijur Rahman akas