1. kaiumkuakata@gmail.com : Ab kaium : Ab kaium
  2. akaskuakata@gmail.com : akas :
  3. mithukuakata@gmail.com : mithu :
  4. mizankuakata@gmail.com : mizan :
  5. habibullahkhanrabbi@gmail.com : rabbi :
  6. amaderkuakata.r@gmail.com : rumi sorif : rumi sorif
বুধবার, ০৩ মার্চ ২০২১, ১১:২৯ পূর্বাহ্ন
বিজ্ঞপ্তিঃ-
প্রতিটি জেলা উপজেলায় প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে। যোগাযোগঃ-০১৯১১১৪৫০৯১, ০১৭১২৭৪৫৬৭৪
শিরোনামঃ-
অন্যের স্ত্রী নগদ টাকা ও স্বর্নালঙ্কার চুরি; কলাপাড়ায় কথিত সাংবাদিকের নামে সমন জারি কলাপাড়া আন্ধার মানিক নদীর মোহনায় জলদস্যু জোংলা শাহালম বাহিনী কর্তৃক ট্রলার ডাকাতি, অপহরণ-১। কলাপাড়ায় হামজার ধাক্কায় ৯ বছরের শিশুর মৃত্যু।। সারাদেশে সাংবাদিক হত্যা, হামলা-মামলা ও নির্যাতনের প্রতিবাদে পটুয়াখালী (বিএমএসএফ’র) কলম বিরতি কর্মসূচি। কবিতা- নতুন লোকে কলাপাড়ায় ডালবুগঞ্জ ইউনিয়নে উপনির্বাচনে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী অধ্যক্ষ দেলওয়ার নির্বাচিত।। রাজবাড়ী খানখানাপুর ইউনিয়নে মৃত, নাজু শেখ কে ঘিরে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত সংস্কারের অভাবে অস্তিত্ব বিলীনের পথে হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের তীর্থস্থান কানাই-বলাই দিঘী বরিশাল রেঞ্জের শ্রেষ্ঠ সার্কেল অফিসার নির্বাচিত” বরগুনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মেহেদী হাসান বাউফলে সাংবাদিকের উপরে হামলাকারী সন্ত্রাসীদের বিচারের দাবিতে মানববন্ধন। মহিপুরে প্রেমের সম্পর্ক মেনে না নেওয়ায় একসঙ্গে দুই জনের বিষপানে প্রেমিকের মৃত্যু। কলাপাড়ার ডালবুগঞ্জে নৌকা প্রতিকের নির্বাচনী অফিস ভাংচুর।।

ব্যবসায়ী ও উদ্যোক্তার মধ্যে পার্থক্যগুলো সঠিক নিরুপন করতে পারাটাই উদ্যোক্তা হওয়ার সবচেয়ে বড় কৌশল

  • আপডেট সময় শুক্রবার, ২২ জানুয়ারী, ২০২১
  • ১৭৮ বার

লেখকঃ ড.মুহিব আহমেদ শাহীন চেয়ারম্যান,মানহা গ্রুপ বিডি সিইও ,ইহসান প্রশিক্ষণ সেবা ফাউন্ডেশন (ইপিএসএফ) আমরা প্রায়ই উদ্যোক্তা ও ব্যবসায়ী দুইজন ব্যক্তিকে একই সংঙ্গায় সংঙ্গায়িত করে থাকি কিন্তু এটা মোটেই ঠিক না। ব্যবসায়ী আর উদ্যোক্তার মধ্যে পার্থক্য রয়েছে।যেমনঃ একজন মুদী দোকানদার ব্যবসায়ীকে আমরা উদ্যোক্তা বলতে পারিনা কারন উদ্যোক্তা হতে হলে অনেক গুলো কৌশল অবলম্বন করতে হয়। তিনি একজন উদ্যোক্তা তখনই হবেন যখন তিনি মানুষের কোনো একটি সমস্যা গৎবাঁধা নিয়মে সমাধান না করে একটু ইনোভেটিভ উপায়ে সমাধান করবেন। আরও বিস্তারিতভাবে বলতে গেলে,আপনি একজন সফল উদ্যোক্তা হতে হলে কতগুলো নিয়ম বা কৌশল আপনাকে অনুসরণ করতে হবে। আপনাকে উদ্যোক্তা হতে হলে প্রথমেই একটা বিষয়কে সামনে রেখে তার সমাধানের চেস্টা করতে হবে আগে। একটি সমস্যা চিহ্নিত করা এবং সেটির একটি উদ্ভাবনী সমাধান বের করা। এরপরের কাজ হলো সেই সমস্যা এবং তার উদ্ভাবনী সমাধানের একটি ব্যবসায়িক মডেল দাঁড় করা।যখনই আপনি সেই বিষয়টির সমাধানের জন্য একটি ব্যবসায়িক মডেল দাঁড় করলেন তখন আপনার সামনে আরেকটি বিষয় স্পষ্ট হবে আর তা হলো একটি শক্তি শালী বিচক্ষণ টিম গঠন করা। আপনার টিমের কয়েকজন কো-ফাউন্ডার অথবা সহ-প্রতিষ্ঠাতা থাকবেন। কো-ফাউন্ডার হচ্ছেন তারা,যারা আপনার মতোই একটি সমস্যা নিয়ে ভাবেন অথবা চিন্তা করেন এবং আপনার টিমে অবশ্যই ভিন্ন ভিন্ন সেক্টরের মানুষ থাকতে হবে। যেমন: কেউ ইঞ্জিনিয়ার,কেউ মার্কেটিংয়ের আবার কেউবা সামাজিক বিজ্ঞানের। এতে করে টিমে বৈচিত্র্য আসবে। এরপর একটি প্রোটোটাইপ তৈরী করতে হবে। অর্থাৎ একটি ব্যবসায়িক মডেল তৈরী করতে হবে এমনভাবে যাতে সম্পূর্ণ ব্যবসায়ের চিত্র ফুটে উঠে।সেখানে আপনার পণ্য কী থাকবে? সেই পণ্যের মান কোমন হবে? কিভাবে সেই পন্য ভোক্তার মাঝে পৌঁছাবে সবকিছু এখানে ফুটে উঠবে। সঠিক মার্কেটিং প্লান একজন উদ্যোক্তার সবচেয়ে বড় কাজ। এখানে আপনাকে সবচেয়ে বড় চ্যালেন্জ গ্রহণ করতে হবে। কারন মার্কেটিং ভালো না হলে আপনার পণ্য বা সেবা সঠিকভাবে ভোক্তার কাছে পৌঁছাবেনা।বর্তমান প্রতিযোগিতা মূলক মার্কেটে টিকে থাকতে হলে আপনাকে অবশ্যই মার্কেটিংয়ের দিকটাকে গুরুত্বসহকারে পর্যালোচনা করতে হবে। নতুন নতুন আইডিয়া একজন উদ্যোক্তার বড় গুন যেটি ব্যবসায়ীর সাথে আপনাকে পার্থক্য করবে। আপনি এমন কিছু আইডিয়া নিয়া আসবেন যাতে করে ভোক্তা নতুন কোন সেবা গ্রহন করতে পারে, সেবাটি এমন হতে পারে যার জন্যই সে দীর্ঘ অপেক্ষায় ছিলো। উদ্ভাবনী শক্তি একজন উদ্যোক্তার বড় গুন। উদ্যোক্তা কখনো একটি বিষয়কে নিয়া বসে থাকেনা সে নতুন আবিস্কারের নেশায় বিভোর থাকে। পণ্য থেকে শুরু করে সকল সেবায় তার আবিস্কারে এক চমকপ্রদ বিষয় ফুঁটে উঠে। একজন উদ্যোক্তাকে ই-কমার্সকে বেশী গুরুত্ব দিতে হবে। কারন বর্তমান যুগ হলো ই-কমার্স যুগ। এই যুগে ডিজিটাল ওয়েতে কর্মপরিচালনা করতে হবে। ই-কমার্সের দিকটাকে গুরুত্ব দিয়ে সকল সেক্টরকে প্রতিনিয়ত আপডেট রাখতে হবে। একজন উদ্যোক্তাকে একজন পরিপক্ক শিল্পোদ্যোক্তা তৈরীর ভিতকে মজবুত করে। একজন উদ্যোক্তার সবচেয়ে বড় কাজ হলো তার টীমের মধ্য থেকে বিচক্ষণ কিছু লোক বাছাই করে গবেষনার জন্য আলাদা টীম গঠন করা। যেই টীমের কাজ হলো সকল সেক্টরের সকল বিষয় নিয়ে পূঙ্খানুপুঙ্খরুপে গবেষনা করা। এছাড়াও একজন সফল উদ্যোক্তা হতে হলে তাকে অনেকগুলো দিক বিবেচনায় রেখে সামনের দিকে অগ্রসর হতে হবে।সঠিক সিদ্ধান্ত গ্রহন করতে হবে, বারবার পর্যালোচনা,আলোচনা,গবেষনা করতে হবে। মোট কথা একজন উদ্যোক্তাকে নিরলস পরিশ্রম করতে হবে। সুতরাং যে কোন লোক ব্যবসায়ী হতে পারলেও উদ্যোক্তা হতে পারেনা।উদ্যোক্তা হওয়া সত্যিই অনেক কঠিন কাজ। ব্যবসায়ী ও উদ্যোক্তার মধ্যে বিস্তর পার্থক্য রয়েছে। একজন উদ্যোক্তা নানা কৌশল অবলম্বন করে তার ব্যবসায়িক সেক্টরকে সম্প্রসারিত করতে পারে।তাই ব্যসায়ী উদ্যোক্তা না হতে পারলেও উদ্যোক্তা ঠিকই একদিন সফল ব্যবসায়ী হয়ে উঠবে এতে কোন সন্দেহ নেই।

আপনার ফেইসবুকে শেয়ার করুন।

এরকম আরো খবর
© এই সাইটের কোন নিউজ/ অডিও/ভিডিও কপি করা দন্ডনিয় অপরাধ।
Created By Hafijur Rahman akas