1. kaiumkuakata@gmail.com : Ab kaium : Ab kaium
  2. akaskuakata@gmail.com : akas :
  3. mithukuakata@gmail.com : mithu :
  4. mizankuakata@gmail.com : mizan :
  5. habibullahkhanrabbi@gmail.com : rabbi :
  6. amaderkuakata.r@gmail.com : rumi sorif : rumi sorif
সোমবার, ১৪ জুন ২০২১, ০২:০২ পূর্বাহ্ন
বিজ্ঞপ্তিঃ-
প্রতিটি জেলা উপজেলায় প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে। যোগাযোগঃ-০১৯১১১৪৫০৯১, ০১৭১২৭৪৫৬৭৪
শিরোনামঃ-
অন্যের স্ত্রী নগদ টাকা ও স্বর্নালঙ্কার চুরি; কলাপাড়ায় কথিত সাংবাদিকের নামে সমন জারি কলাপাড়া আন্ধার মানিক নদীর মোহনায় জলদস্যু জোংলা শাহালম বাহিনী কর্তৃক ট্রলার ডাকাতি, অপহরণ-১। বঙ্গোপসাগরে নৌ পুলিশের অভিযানে ১৬ জেলে আটক, ৪ ট্রলার মালিককে জরিমানা । কলাপাড়া উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মৎস্য বন্দর আলিপুরে ট্রলার মালিক ও মাঝি সমিতির বিক্ষোভ মিছিল মহিপুরে কোস্ট গার্ডের অভিযান,২ লাখ ৫০ হাজার বাগদা চিংড়ি রেনু জব্দ কুয়াকাটায় বিশ্ব সমুদ্র দিবসে জীব বৈচিত্র্য রক্ষার দাবি। ‘ও কিসের সাংবাদিক’? রাঙ্গাবালীতে প্রকাশ্য দিবালোকে ব্যবসায়ীর ১ লক্ষ ৭০ হাজার টাকা ছিনতাই রাজবাড়ীতে স্বেচ্ছাসেবক লীগের পক্ষ থেকে বাজেট কে স্বাগত জানিয়ে গোয়ালন্দে আনন্দ মিছিল অনুষ্ঠিত হয় রাজবাড়ীতে গোয়ালন্দে গুরু খামারিদের মাঝে প্রদর্শনী ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠিত হয় কলাপাড়ায় প্রানীসম্পদ প্রদর্শনীর উদ্বোধন অনুষ্ঠিত ॥ কলাপাড়ায় ধর্ষনের নিউজ করায় সাংবাদিককে হত্যার হুমকি।

বন কর্মকর্তা আবুল কালামের বিরুদ্ধে সরকারি গাছ চুরির অভিযোগ।

  • আপডেট সময় মঙ্গলবার, ১২ জানুয়ারী, ২০২১
  • ১৫৫ বার

নিজস্ব প্রতিনিধি, পটুয়াখালী।।

পটুয়াখালীর বাউফলে বন কর্মকর্তা আবুল কালামের বিরুদ্ধে রাতের আধাঁরে সরকারি গাছ চুরি করে নেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

উপজেলার কালিশুরী থেকে বাহিরচর এলাকার প্রকল্পের উপকারভোগী সমিতির সভাপতি জলিল মাস্টার বন বিভাগের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের কাছে লিখিত অভিযোগ করেছেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, গত ২৪ ডিসেম্বর রাত সাড়ে ৮টায় উপজেলা বন কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) আবুল কালামসহ ৭/৮ জন লোক কালিশুরী বন্দর থেকে বাহিরচর সড়কের পাশে সামাজিক বনায়ন প্রকল্পের শোভাবর্ধনকারী বেশ কিছু মূল্যবান কাছ কেটে ফেলে। গাছগুলো স্থানীয় পরিবহনে করে ট্রলারে ভরার সময় প্রকল্পের উপকারভোগী সমিতির সভাপতি জলিল মাস্টারসহ অন্যান্য সদস্যরা দেখে ফেলে এবং সাথে সাথে গাছ নিতে বাঁধা দেয়। এ সময় বন কর্মকর্তা আবুল কালাম ট্রলারভর্তি গাছ নিয়ে দ্রুত গতিতে চলে যায়। পরের দিন সকালে বন কর্মকর্তা আবুল কালাম এসে গাছ নিতে বাঁধাদানকারীদের নামে মামলা দেওয়াসহ জীবননাশের হুমকি দেয় বলে অভিযোগে উল্লেখ করেন।

আবুল কালামের বাড়ি ওই এলাকার চাঁদকাঠী গ্রামে। এর আগেও ওই উপজেলায় বনকর্তার দায়িত্বে ছিলেন এবং ওই সময়ও তার বিরুদ্ধে গাছ চুরির অভিযোগ ছিলো। তার সাথে বিভিন্ন এলাকার সন্ত্রাসী, চোরাকারবারী সাথে সখ্যতা আছে বলে এলাকাবাসীর অভিযোগ রয়েছে।

গত ২৯ ডিসেম্বর পটুয়াখালী জেলা বন কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ করার পরে ভয়ে অভিযোগকারী ভয়ে এলাকা ছেড়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন বলে জানা গেছে। আব্দুল জলিলের পরিবার আরও জানায় সামাজিক বনায়ন প্রকল্পের সুফলভোগীরা আবুল কালামের মামলা হয়রানির আতংকে রয়েছেন।

অভিযোগের বিষয়ে বাউফল বন কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) আবুল কালাম তার মুঠোফোনে (০১৭১২০১৫০৮৫) বলেন, ওই গাছগুলো স্থানীয় চেয়ারম্যানের হেফাজতে আছে। আমি মোটরসাইকেলে চেয়ারম্যানের কাছে যাচ্ছি। এ বিষয়ে বিকালে আপনার সাথে কথা হবে বলে ফোন রেখে দেয়।

অভিযোগের তদন্ত অগ্রগতি বিষয়ে জেলা বন কর্মকর্তা আমিনুল ইসলাম বলেন, আবুল কালামের বিরুদ্ধে অভিযোগ পেয়েছি। বিষয়টি নিয়ে তদন্ত চলছে। দোষী সাব্যস্ত হলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আপনার ফেইসবুকে শেয়ার করুন।

এরকম আরো খবর
© এই সাইটের কোন নিউজ/ অডিও/ভিডিও কপি করা দন্ডনিয় অপরাধ।
Created By Hafijur Rahman akas