1. kaiumkuakata@gmail.com : Ab kaium : Ab kaium
  2. akaskuakata@gmail.com : akas :
  3. mithukuakata@gmail.com : mithu :
  4. mizankuakata@gmail.com : mizan :
  5. habibullahkhanrabbi@gmail.com : rabbi :
  6. amaderkuakata.r@gmail.com : rumi sorif : rumi sorif
মঙ্গলবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০১:৫২ অপরাহ্ন
বিজ্ঞপ্তিঃ-
প্রতিটি জেলা উপজেলায় প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে। যোগাযোগঃ-০১৯১১১৪৫০৯১, ০১৭১২৭৪৫৬৭৪
শিরোনামঃ-
অন্যের স্ত্রী নগদ টাকা ও স্বর্নালঙ্কার চুরি; কলাপাড়ায় কথিত সাংবাদিকের নামে সমন জারি কলাপাড়া আন্ধার মানিক নদীর মোহনায় জলদস্যু জোংলা শাহালম বাহিনী কর্তৃক ট্রলার ডাকাতি, অপহরণ-১। মৎস্য আড়ৎ ঘাটে বিরাজ করছে উৎসব মুখর পরিবেশ । আজ উদ্ভোধন মহিপুর ও আলিপুর মৎস্য অবতরণ কেন্দ্র।। অতিরিক্ত মদপানে’ কক্সবাজারে বেড়াতে এসে মারা গেলেন ‘ছাত্রলীগ নেতা’ কক্সবাজার ভ্রমনে এসে ৭ বন্ধুর দুই জনের মৃত্যু, ৪ জন আটক যশোর জেলা বেনাপোল ভারত গমন গামী যাত্রীদের চলাচলের উপর শর্ত শিথিল ভারত থেকে চিকিৎসা দেশের ফেরত পর ইমিগ্রেশনে পাসপোর্টযাত্রীর স্ট্রোক করে মৃত্যু হিলিতে হোটেলে কাজে না আসায় শ্রমিককে মারপিট করে আহত।। নোয়াখালী রিক্সা চালক হত্যার আসামী বেনাপোল পোর্ট থানা পুলিশের হাতে আটক। আজ হাকিমপুরে বিনামুল্যে চক্ষু শিবিরের আয়োজন করলেন জনদরদী মোঃ কাওছার আলী।। মাদক মুক্ত করতে”বরগুনার এসপি জাহাঙ্গীর মল্লিক এর আল্টিমেটাম মশার কামড়ে অতিষ্ঠ জনজীবন, নিস্তার মিলছেনা আমতলী উপজেলাবাসীর!

উতপ্ত হয়ে উঠছে পরিবেশ” চাঁদার দাবীতে যুবলীগ কর্মীকে মারধর অভিযোগ।

  • আপডেট সময় সোমবার, ১১ জানুয়ারী, ২০২১
  • ২১৯ বার

বিশেষ প্রতিনিধি।।

পটুয়াখালীর কুয়াকাটায় দুই লাখ টাকা চাঁদার দাবীতে পৌর যুবলীগের সদস্য রফিক ফরাজীকে মারধর ও প্রান নাশের হুমকী দেয়ার অভিযোগ উঠেছে। এসময় রফিকের সাথে থাকা ১৭ হাজার টাকা এবং একটি স্বর্নের চেইন ছিনিয়ে নেয় সন্ত্রাসীরা। নবনির্বাচিত মেয়র আনোয়ার হাওলাদার’র উপস্থিতিতেই হোসেন পাড়া এলাকার মো. রফিক ও হালিমের নেতৃত্বে ৭-৮জনের একদল সন্ত্রাসী বাহিনী মাধরধর ও জীবন নাশের হুমকী দেয় হয় বলে অভিযোগ করা হয়। কুয়াকাটা পৌর নির্বাচনের জের ধরে রবিবার রাতে জিরো পয়েন্ট এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। অভিযোগ রয়েছে ছাত্রলীগ নেতা নুরুজ্জামান ও আব্বাসী হত্যা মামলার আসামীরা এ চাঁদা দাবী এবং মারধরে অংশ নেয়। এরা সকলেই বিএনপি কর্মী। এঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।
প্রত্যক্ষদর্র্শী আব্দুর রশিদ সরকার জানান, রফিক মনিরের ফলের দোকানের সামনে অবস্থান করছিল। হঠাৎ একদল সন্ত্রাসী যুবলীগ সদস্য রফিককে অতর্কিত ভাবে মারধর করে। মারধরে অংশ নেয়া এরা সকলেই নবনির্বাচিত পৌর মেয়র আনোয়ার হাওলাদারের আত্মীয় স্বজন। আব্দুর রশিদ আরও বলেন, এসময় মেয়র আনোয়ার হাওলাদার পুলিশ বক্সে উপস্থিত ছিলেন। তিনি আরও বলেন, মেয়র নির্বাচিত হবার পর দ্বায়িত্বভার গ্রহন করার আগেই তার লোকজনের এমন কর্মকান্ড আমাদের হতবাক করেছে। এসময় তিনি সহ প্রায় অর্ধশতাধিক লোক সেখানে উপস্থিত ছিলেন দাবী করেন।
পৌর যুবলীগ সদস্য রফিক ফরাজী বলেন,কুয়াকাটা পৌর নির্বাচনের পর হোসেন পাড়া এলাকার রফিক,হালিম, মতিউর.মনির,আনোয়ার, বায়েজীতসহ নবনির্বাচিত মেয়রের স্বজনরা তার কাছে দুই লাখ টাকা চাঁদা দাবী করে আসছে। অন্যথায় কুয়াকাটা ছেড়ে চলে যাবার হুমকী প্রদান করে। এমনকি তার বাড়ী ও চলাচলের পথ রোধ করে প্রান নাশের হুমকী দেয়। রবিবার রাতে স্বদেশ প্রত্যাবর্তণ দিবসের অনুষ্ঠান শেষে বাড়ি ফিরছিল। চৌ-রাস্তার মোড়ে মনিরের ফলের দোকানের সামনে আসলে অতর্কিত ভাবে কিছু বুঝে ওঠার আগেই তাকে এলো পাথারী কিল ঘুষি দিতে থাকে। তাদের সাথে আরও ৭-৮জনের একদল সন্ত্রাসী বাহিনী এদের সাথে ছিল। রফিক দাবী করেন নবনির্বাচিত মেয়রের নির্দেশেই তার উপর এমন হামলা করা হয়। ফল বিক্রেতা মনির অভিযোগ করেন,মারধরের ঘটনার স্বাক্ষী না হতে তাকেও হুমকী দেয়া হয়েছে। এদিকে আওয়ামী লীগ নেতা ছালাম গাজী অভিযোগ করেন,নির্বাচনের পর তার বাড়ীতে হামলা চালিয়ে হাঁস মুরগী সহ তার ঘরের জিনিজপত্র লুট ও ভাংচুর করেছে নবনির্বাচিত মেয়রের লোকজন।
কুয়াকাটা পৌর যুবলীগের আহবায়ক ইসাহাক শেখ জানান,নৌকার সমর্থক জাকির হোসেন,আবু হানিফ,ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতা ছালাম গাজী,মোঃ মোশাররফ,পৌর যুবলীগ নেতা নুরুজ্জামান সহ একাধিক নেতাকর্মিকে মারধর ও হুমকী দেয়া হচ্ছে। তিনি আর বলেন,আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় থাকাকালীণ আওয়ামী লীগ,যুবলীগসহ বিভিন্ন অংগ সংগঠনের নেতাকর্মীদের উপর হামলা ও মারধর করা হচ্ছে। যুবলীগের আহবায়ক অভিযোগ করেন, হাইব্রীড ও সুবিধাভোগী কতিপয় নেতা নবনির্বাচিত মেয়রের ছত্রছায়ায় বিএনপি নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মিদের উপর চড়াও হচ্ছে। এলাকা ছাড়ার হুমকী দেয়া হচ্ছে।
কুয়াকাটা পৌর আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সদ্য পরাজিত মেয়র আঃ বারেক মোল্লা বলেন, পৌর নির্বাচনের জের ধরে আওয়ামী লীগ ও অংগসংগঠনের নেতাকর্মীদের মারধর ও নানা ভাবে হুমকী দেয়া হচ্ছে। তিনি অভিযোগ করেন,হাইব্রীড ও দলছুট কতিপয় সূবিধাভোগী সন্ত্রাসী নবনির্বাচিত মেয়রের ইন্দনে এসব করছে। এবিষয়ে তিনি পটুয়াখালী পুলিশ সুপারকে অবহিত করেছেন বলে জানান তিনি।
এবিষয়ে নবনির্বাচিত মেয়র আনোয়ার হাওলাদার বলেন, রোববার রাতে জিরো পয়েন্টে পুলিশ বক্সে তিনি সহ বিএনপি নেতা ব্যবসায়ী শাহজাহান আকন ওসি মনিরুজ্জামানের সাথে কথা বলছিলেন। এসময় পুলিশ বক্সের বাহিরে রফিক তাকে অকথ্য ভাষায় গালাগালি করছিল। ওসি নিজেই এর প্রত্যক্ষদর্শী। মেয়র আরও বলেন,তার কোন সন্ত্রাসী বাহিনী নেই। তার কোন লোকে কাউকে মারধর কিংবা চাঁদা দাবী করেনি। এটা একটি সাজানো নাটক।
মহিপুর থানার অফিসার্স ইনচার্জ মো. মনিরুজ্জামান বলেন,রাতে তিনি পুলিশ বক্সে অবস্থান করছিলেন। এসময় হৈ চৈ ও লোকজনের জটলা দেখতে পান। কি হয়েছে জিগ্যেস করতে জড়ো হওয়া লোকজন যার যার মত চলে যায়। মারধর কিংবা চাঁদা দাবীর বিষয়ে এখন পর্যন্ত কেউ অভিযোগ করেনি। ###

আপনার ফেইসবুকে শেয়ার করুন।

এরকম আরো খবর
© এই সাইটের কোন নিউজ/ অডিও/ভিডিও কপি করা দন্ডনিয় অপরাধ।
Created By Hafijur Rahman akas