1. kaiumkuakata@gmail.com : Ab kaium : Ab kaium
  2. akaskuakata@gmail.com : akas :
  3. mithukuakata@gmail.com : mithu :
  4. mizankuakata@gmail.com : mizan :
  5. habibullahkhanrabbi@gmail.com : rabbi :
  6. amaderkuakata.r@gmail.com : rumi sorif : rumi sorif
সোমবার, ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০১:০৪ অপরাহ্ন
বিজ্ঞপ্তিঃ-
প্রতিটি জেলা উপজেলায় প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে। যোগাযোগঃ-০১৯১১১৪৫০৯১, ০১৭১২৭৪৫৬৭৪

আলফাডাঙ্গায় রাস্তার জায়গা জুড়ে বাড়ি নির্মাণের বাঁধা দেওয়ায় বন কর্মকর্তার উপর হামলা

  • আপডেট সময় সোমবার, ৫ ডিসেম্বর, ২০২২
  • ৫১ বার

আলফাডাঙ্গা প্রতিনিধি।।

ফরিদপুরের আলফাডাঙ্গা পৌরসভাধীন ৮ নং ওয়ার্ডে রাস্তা জুড়ে বাড়ি নির্মাণের বাঁধা দেওয়ায় বন কর্মকর্তা লিটন শেখ এর উপর হামলা চালিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত সোমবার৫ ডিসেম্বর সকাল আটটার দিকে হাসপাতালের পূর্ব পাশে নবীর মোল্লার ছেলে মিজান মোল্লা তার জমিসহ রাস্তা জুড়ে নির্মাণ কাজ শুরু করলে প্রতিবেশী বন কর্মকর্তা রাস্তা ছেড়ে কাজ করতে বললে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে মিজান তার লোকজন নিয়ে হামলা চালায়। পরের প্রতিবেশীরা চিৎকার শুনে ঘটনাস্থলে এসে লিটন শেখ কে উদ্ধার করে আলফাডাঙ্গা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। এদিকে বন কর্মকর্তা লিটন শেখ বলেন, আমি সকালে অফিসে যাওয়ার সময় রাস্তার মাঝখান জুড়ে মাটি কাটতে দেখি।এলাকার জনস্বার্থে পাশে থাকা গোলাম নবীকে রাস্তা ছেড়ে কাজ করতে বললে কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে উত্তেজিত হয়।তার ছেলে মিজান দলবল নিয়ে আমার উপর হামলা চালায়। অপরদিকে মিজান মোল্লার সাথে যোগাযোগ করতে গেলে তার বাবা গোলাম নবী ঘর থেকে বের হয়ে তথ্য দিতে গেলে মিজানের স্ত্রী শ্বশুরের (গোলাম নবীর) হাত ধরে টেনে নিয়ে ঘরে চলে যায়।এবং বলেন আপনাদের( সাংবাদিক) কোন তথ্য দিতে রাজি নই।হামলাকারী মিজানের মোবাইল নাম্বার জানতে চাইলে নাম্বার মুখস্ত নেই ও বাড়িতে নেই বলে জানায়।তার নাম জানতে চাইলে অনিচ্ছা প্রকাশ করেন।
এদিকে হাসপাতালে কর্তব্যরত চিকিৎসক বলেন মাথায় কয়েকটি সেলাই হয়েছে ও কয়েক জায়গায় আঘাতের চিহ্ন আছে।এখন হাসপাতালে ভর্তি আছে।
আলফাডাঙ্গা থানা অফিসার ইনচার্জ আবু তাহের বলেন,সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়েছি, অভিযোগের পর মামলা হয়েছে।দ্রুত আসামিদের গ্রেফতার করা হইবে।

আপনার ফেইসবুকে শেয়ার করুন।

এরকম আরো খবর
© এই সাইটের কোন নিউজ/ অডিও/ভিডিও কপি করা দন্ডনিয় অপরাধ।
Created By Hafijur Rahman akas