1. kaiumkuakata@gmail.com : Ab kaium : Ab kaium
  2. akaskuakata@gmail.com : akas :
  3. mithukuakata@gmail.com : mithu :
  4. mizankuakata@gmail.com : mizan :
  5. habibullahkhanrabbi@gmail.com : rabbi :
  6. amaderkuakata.r@gmail.com : rumi sorif : rumi sorif
রবিবার, ১৩ জুন ২০২১, ০৪:৪৫ অপরাহ্ন
বিজ্ঞপ্তিঃ-
প্রতিটি জেলা উপজেলায় প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে। যোগাযোগঃ-০১৯১১১৪৫০৯১, ০১৭১২৭৪৫৬৭৪
শিরোনামঃ-
অন্যের স্ত্রী নগদ টাকা ও স্বর্নালঙ্কার চুরি; কলাপাড়ায় কথিত সাংবাদিকের নামে সমন জারি কলাপাড়া আন্ধার মানিক নদীর মোহনায় জলদস্যু জোংলা শাহালম বাহিনী কর্তৃক ট্রলার ডাকাতি, অপহরণ-১। বঙ্গোপসাগরে নৌ পুলিশের অভিযানে ১৬ জেলে আটক, ৪ ট্রলার মালিককে জরিমানা । কলাপাড়া উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মৎস্য বন্দর আলিপুরে ট্রলার মালিক ও মাঝি সমিতির বিক্ষোভ মিছিল মহিপুরে কোস্ট গার্ডের অভিযান,২ লাখ ৫০ হাজার বাগদা চিংড়ি রেনু জব্দ কুয়াকাটায় বিশ্ব সমুদ্র দিবসে জীব বৈচিত্র্য রক্ষার দাবি। ‘ও কিসের সাংবাদিক’? রাঙ্গাবালীতে প্রকাশ্য দিবালোকে ব্যবসায়ীর ১ লক্ষ ৭০ হাজার টাকা ছিনতাই রাজবাড়ীতে স্বেচ্ছাসেবক লীগের পক্ষ থেকে বাজেট কে স্বাগত জানিয়ে গোয়ালন্দে আনন্দ মিছিল অনুষ্ঠিত হয় রাজবাড়ীতে গোয়ালন্দে গুরু খামারিদের মাঝে প্রদর্শনী ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠিত হয় কলাপাড়ায় প্রানীসম্পদ প্রদর্শনীর উদ্বোধন অনুষ্ঠিত ॥ কলাপাড়ায় ধর্ষনের নিউজ করায় সাংবাদিককে হত্যার হুমকি।

মহিপুরে শেষ মুহূর্তে প্রচার প্রচারণায় মুখরিত নির্বচনী জনপদ।

  • আপডেট সময় রবিবার, ১৮ অক্টোবর, ২০২০
  • ২২০ বার

আমাদের কুয়াকাটা ডেস্ক।।

পটুয়াখালীর মহিপুর সদর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের বাকীমাত্র ২দিন। আগামী ২০ অক্টোবর নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। শেষ মুহূর্তে প্রচার প্রচারণায় মুখরিত নির্বচনী জনপদ। ভোট প্রত্যাশায় মরিয়া হয়ে উঠেছেন আওয়ামী লীগ মনোনিত নৌকা মার্কার প্রার্থী আঃ মালেক আকন্দ ও স্থানীয় বিএনপির অঘোষিত সমর্থন নিয়ে ভোটের মাঠে থাকা আনারস মার্কার স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী হাজী ফজলু গাজী। নিজ নিজ বিজয় নিশ্চিত করতে নির্বাচনী মৌখিক ইসতেহার নিয়ে দিন-রাত সমানতালে চালিয়ে যাচ্ছেন প্রচার-প্রচারনা। ভোটারদের দ্বারে দ্বারে ঘুরে বেড়াচ্ছেন তাদের কর্মী সমর্থকরা। উন্নয়ন ও কর্ম-পরিকল্পনার ফুলঝুড়ির বানী নিয়ে ভোটারদের দোরগোড়ায় প্রার্থীরাও ঘুরছেন সকাল থেকে রাত অবদি। চায়ের আড্ডায় চলছে চুলছেঁড়া বিশ্লেষণ আর নানা জল্পনা-কল্পনা। সমুদ্র বেষ্টিত অবহেলিত এ জনপদের যিনি উন্নয়ন ঘটাতে পারবেন তাকেই বেছে নিবেন ভোটাররা। তবে হাড্ডা-হাড্ডি লড়াই হবে- এমন ধারণা ভোটারদের। এদিকে ৯টি কেন্দ্রই ঝুকিঁপুর্ণ দাবী করে উপজেলা নির্বাচন অফিসার আব্দুর রশিদ অতিরিক্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদারের অনুরোধ করেছেন জেলা প্রশাসনের কাছে।

প্রমত্তা আন্ধারমানিকের কড়ালগ্রাস আর অভ্যন্তরীণ সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা এবং অনুন্নত জনপদের ইউনিয়ন মহিপুর। যেখানে বছরের ৬ মাস থাকে জনদুর্ভোগ। অবকাঠামোগত উন্নয়ন ছাড়া ভঙ্গুর অবস্থায় হতে চলছে নির্বাচনটি। এতে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী আঃ মালেক আকন্দ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী হাজী মোঃ ফজলু গাজী মহিপুর থানা বিএনপির সহ সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন। তবে বিএনপি নির্বাচনে অংশ না নিলেও কৌশলে স্বতন্ত্র প্রার্থীর পক্ষেই নেতা কর্মীরা মাঠে রয়েছেন। এছাড়াও ৯টি ওয়ার্ডের সাধারণ আসনে ৩৪ জন এবং সংরক্ষিত নারী আসনে ৮ জন নারী প্রার্থী নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেছেন।
নজিবপুর গ্রামের বাসিন্দা ইলিয়াছ বলেন, যারা নদী ভাঙ্গন, সড়ক যোগাযোগ উন্নয়নসহ আমাদের ভগ্যোন্নয়নে কাজ করবেন, সেই যোগ্য সৎ নিবেদিতপ্রাণ ব্যক্তিকে ভোট দেব। স্বতন্ত্র প্রার্থী মোঃ ফজলু গাজী শুক্রবার (১৬ অক্টোবর) সকালে কলাপাড়া প্রেসক্লাবে এক লিখিত সংবাদ সম্মেলন করেন। এ সময় তিনি নির্বাচন সুষ্ঠু হয় কিনা- এমন শঙ্কার কথা জানিয়েছেন।
আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আঃ মালেক আকন্দ স্বতন্ত্র প্রার্থীর অভিযোগ নাকচ করে বলেন, নির্বাচন অত্যন্ত ও নিরপেক্ষ হবে। সুতরাং আওয়ামী লীগের বিশাল সমর্থকগোষ্ঠী রয়েছে এখানে। এতে আমি বিপুল ভোটে জয়ী হব। তিনি আরো বলেন, এলাকার যত উন্ন্য়ন হয়েছে তা সবই এ সরকারের অবদান। যখনই সুযোগ পেয়েছি, এলাকার সাধারণ মানুষের সঙ্গে মিশেছি। নির্বাচনে ভোটারদের কাছ থেকে ভাল সাড়া পাচ্ছি।
রিটার্নিং কর্মকর্তা ও কলাপাড়া উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আবদুর রশিদ বলেন, আগামি ২০ অক্টোবরের নির্বাচনে মহিপুর সদর ইউনিয়ন পরিষদে মোট ভোটার ১৪ হাজার ৭শ’৬৯ জন। এদের মধ্যে পুরুষ ৭ হাজার ৫শ’৯৩ জন এবং ৭ হাজার ১শ’৭৬ জন নারী ভোটার রয়েছে। নির্বাচনকে ঘিরে ইতোমধ্যে ব্যাপক নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। ৯টি ভোট কেন্দ্রে ৯জন প্রিজাইডিং অফিসার, ৪২জন সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার থাকবেন। এ ছাড়া ৮৪ জন পোলিং অফিসার এবং ১শ’৭১ জন আনসার সদস্য নিয়োগ করা হয়েছে। প্রতিটি ভোট কেন্দ্রের জন্য একজন ম্যাজিস্ট্রেট এর নেতৃত্বে বিজিবি, র‍্যাব, পুলিশের স্ট্রাইকিং ফোর্সসহ বিভিন্ন আইন প্রয়োগকারী সংস্থার সদস্যরা নির্বাচনের দিন মাঠে থাকবেন।

আপনার ফেইসবুকে শেয়ার করুন।

এরকম আরো খবর
© এই সাইটের কোন নিউজ/ অডিও/ভিডিও কপি করা দন্ডনিয় অপরাধ।
Created By Hafijur Rahman akas