আত্রাইয়ে ভূয়া MBBS ডাক্তারের মাত্র ৩০ হাজার টাকা জরিমানা,এলাকায় সমলোচনার ঝড়।।

24

মোঃ শিফাত মাহমুদ ফাহিম,বিশেষ প্রতিনিধি: নওগাঁ জেলার আত্রাই উপজেলার ২ বছর যাবৎ আলোচনার শীর্ষে থাকা “বিএমডিসির” রেজিঃ প্রাপ্ত ভূয়া এমবিবিএস ডাক্তার হামিদুলের মাত্র ৩০ হাজার টাকা জরিমানা করলেন,উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ সানাউল হক(ইউএনও)।তাও আবার বিএমডিসি’তে ভূয়া প্রমাণিত হওয়ার প্রায় ৭/৮ মাস পর যা,নিয়ে এলাকায় চলছে নানা ধরণের সমলোচনা।

এলাকার সচেতন মহলের লোকজন বলেন,আমরা আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল।কিন্তু ২ বছর যাবৎ সমলোচনায় থাকা একজন ভূয়া এমবিবিএস ডাক্তারের কি করে মাত্র ৩০ হাজার টাকা জরিমানা হয়? ইউএনও, সাহেব যদি,ওর জরিমানা ৩০ হাজার টাকা না করে,ওর ১৫ দিন অথবা ১ মাসের জেল দিতো তাহলে এলাকার মানুষ অনেক বেশি খুশি হতো।ওর অবৈধ টাকা আছে টাকা দিয়ে চলে আসছে এতো তো ওর কোন সাজা হলো না।

তাই আমি/আমরা মনে করি ওর সাজা হওয়ার দরকার ছিলো।আমরা আসলে জানিনা ইউএনও স্যার কেন ওর জেলা দিলো না? আসলে এটি অনেক ভাবনার একটি বিষয়।কেননা সামান্য ছোট খাটো অপরাধে উনি, ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে মানুষদের জেলে পাঠায়।কিন্তু ডাক্তার নামক একটি কসায় কে,কেন উনি এতো বেশি ছাড় দিলো.?

আসলে এটি বিচার করা হলো, নাকি আত্রাইবাসীর সাথে তামশা করা হলো আমরা সঠিক বুঝলাম না।বর্তমানে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভূয়া এমবিবিএস ডাক্তার হিসাবে সে একজন আলোচিত ব্যক্তি।তাকে নিয়ে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন পত্র পত্রিকায় ধারাবাহিতায় সংবাদ প্রচার হয়েছে।সেই সাথে সে নিজেকে নির্দোষ দাবি ও বিএমডিসির রেজিঃ প্রাপ্ত একজন বৈধ ডাক্তার হিসাবে দাবি করেন।সেই সাথে সাংবাদিকের বিরুদ্ধে মিথ্যা চাঁদাবাজির অভিযোগ এনে সংবাদ সম্মেলন করেন স্থায়ী প্রেসক্লাবে।

শুধু তাই নয়, সাংবাদিক শিফাত মাহমুদ ফাহিম’কে (১) আসমী করে তার পরিবারের সকল সদস্যদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মানহানির হয়রানী মূলক মামলা করেন নওগাঁ জজ কোর্টে।উক্ত মামলা হতে রেহায় পায়নি তার বৃদ্ধা বাবা ও নিরাপদ নির্দোষ ভাই সহ পরিবারের কেউ’ই।
আমরা এলাকাবাসী এই ভূয়া এমবিবিএস ডাক্তারের সঠিক বিচার চাই “আই” ওয়াস নয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here