জলের শিশুরা জলেই শিখব”

92

জসিম উদ্দীন আহম্মেদ পটুয়খালী প্রতিনিধি।। জলেভাসা সম্প্রদায়ের নাম মান্তা। তাদের জন্ম-মৃত্যু-বিয়ে সবই নৌকায়। জীবনের শুরু এবং শেষ পর্যন্ত নৌকাতেই কাটে তাদের। যে বয়সে শিশুদের হাতে বই-খাতা-কলম থাকার কথা, সেই বয়সেই ওইসব কোমলমতি শিশুদের দেয়া হয় বৈঠা বাওয়ার শিক্ষা। ৮-১০ বছর বয়স থেকেই নদীতে মাছ ধরতে যায ওরা। শিশুদের জন্য কোন বিনোদনের ব্যাবস্থা ছিল না। ছিল না শিক্ষার ছোঁয়া। কিন্তু এখন থেকে সেই শিশুরা লেখাপড়া শিখবে। হৈ-হুল্লোর করে স্কুলে যাবে।

মা ও শিশুদের মধ্যে শিক্ষার আলো ছড়িয়ে দিতে দাতাসংস্থা মুসলিম চ্যারিটি হলপিং দ্যা নিডির (ইউক)এর আর্থিক সহায়তায় ও উপকূলীয় উন্নয়ন সংস্থা জাগোনারীর বাস্তবায়নে, পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী উপজেলার চরমোন্তাজ ইউনিয়নের স্লুইজের খালে ভাসমান ‘শিশু বাগান’ নামক একটি প্রাক-প্রাথমিক বোট স্কুল প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। শুক্রবার দুপুর ১২ টায় ভাসমান ওই প্রাক-প্রাথমিক বোট স্কুলের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন, পটুয়াখালী জেলা প্রশাসক মো. মতিউল ইসলাম চৌধুরী। এসময় জেলা প্রশাসক ওই স্কুলের নবীন শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেন, ‘আমরা চাই তোমরা লেখাপড়া করে মানুষের মত মানুষ হবে। চাকুরিজীবি হবে। দেশের উন্নয়নে অবদান রাখবে।’ শিশুদের শিক্ষা নিশ্চিত করার পাশাপাশি মান্তা জনগোষ্ঠির স্থায়ীভাবে বসবাসের ব্যবস্থা করার পরিকল্পনা রয়েছে। আশা করি, খুব দ্রুত তা দৃশ্যমান দেখা যাবে।’

এ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে চরমোন্তাজ ইউপি চেয়ারম্যান হানিফ মিয়ার সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মাশফাকুর রহমান, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান জহির উদ্দিন আহম্মেদ, উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) গোলাম সগীর, বরগুনা জাগো নারীর প্রধান নির্বাহী হোসনে আরা হাসি, মুসলিম চ্যারিটির কান্ট্রী সমন্বয়কারী ফজলুল করিম ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here