জেলা পর্যায়ে গ্রাম আদালত কার্যক্রমের অগ্রগতি

68

বরগুনা প্রতিনিধিঃ
বরগুনা জেলা প্রশাসন, বরগুনার গ্রামীণ জনগণ বিশেষ করে নারী, দরিদ্র ও প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর মাঝে গ্রাম আদালত সেবা পৌছে দেয়ার লক্ষ্যে ‘জেলা পর্যায়ে গ্রাম আদালত কার্যক্রমের অগ্রগতি পর্যালোচনা ও করণীয় বার্ষিক সমন্বয় সভা ১৩জুন বৃহস্পতিবার জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে আয়োজন করেছে। বাংলাদেশ সরকার, ইউরোপীয়ান ইউনিয়ন এবং ইউএনডিপি এর আর্থিক সহায়তায় পরিচালিত বাংলাদেশে গ্রাম আদালত সক্রিয়করণ (২য় পর্যায়) প্রকল্প এর সহযোগিতায় অনুষ্ঠিত এ সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জনাব কবীর মাহমুদ, জেলা প্রশাসক বরগুনা, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জনাব মো: তোফায়েল আহমেদ, পুলিশ সপিার (ভারপ্রাপ্ত) বরগুনা, সমন্বয় সভায় সভাপতিত্ব করেন জনাব মো: মাহবুব আলম,উপ-পরিচালক ,স্থানীয় সরকার,বরগুনা। এছাড়াও সভায় প্রকল্পভুক্ত ৪টি উপজেলার (আমতলী,বেতাগী,বামনা,পাথরঘাটা) উপজেলা চেয়ামর‌্যান,উপজেলা নির্বাহী অফিসার, ২৫টি ইউপি চেয়ারম্যান, প্রেস ক্লাব প্রতিনিধি ও বিভিন্ন বেসরকারী প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

এ সমন্বয় সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে জনাব কবির মাহমুদ, জেলা প্রশাসক, বরগুনা তার বক্তৃতায় বলেন, স্থানীয় পর্যায়ে বিচার ব্যবস্থা সালিশী নির্ভর ছিল। গ্রাম আদালত সালিশীর আইনী কাঠামোর একটি বিচারিক ব্যবস্থা। সাধারণ মানুষ থানা বা কোর্টে গেলে টাকা ব্যয় হয় এবং হয়রানির শিকার হয়। অন্যদিকে গ্রাম আদালতে কম খরচে ও দ্রুত বিচার নিষ্পত্তি হয় এবং আবেদনকারী ক্ষতিপূরণ পায়। এর পাশাপাশি আবেদনকারী ও প্রতিবাদী দুজনই তাদের পছন্দমতো প্রতিনিধি মনোনয়নের সুযোগ পায়। তিনি আইনজীবিদের উদ্দেশ্যে বলেন জেলা আইনজীবিদের সমন্বয়ে একটি গবেষণা করা দরকার যাতে গ্রাম আদালতের এখতিয়ারভুক্ত কি পরিমাণ মামলা জেলা আদালতে আছে সেগুলো ইউিিনয়ন পরিষদে পাঠানো যায় কিনা চিন্তা করা উচিত। জেলা প্রশাসক ইউপি চেয়ারম্যানদের উদ্দেশ্যে বলেন আপনারা সাধারণ মানুষের কাছে যদি ন্যায় বিচারক হিসেবে আস্থা অর্জন করতে পারেন তাহলে সাধারণ মানুষ সেবা নিতে ইউনিয়ন পরিষদে আসবে। বরগুনা জেলার সকল ইউনিয়নে গ্রাম আদালতের কার্যক্রম ও সেবা প্রসারের বিষয়ে প্রত্যেকের নিজের জায়গা থেকে সাধারণ জনগণকে উদ্বুদ্ধ করতে তিনি উপস্থিত আহ্বান জানান।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে জনাব মোঃ তোফায়েল আহমেদ,পুলিশ সুপার(ভারপ্রাপ্ত) বরগুনা বলেন, , ছোটো খাটো বিরোধ গ্রাম আদালতে দ্রুত সময়ে নিষ্পত্তি হয় বলে গ্রাম আদালতগুলোকে আরো কার্যকর করতে আমাদের সবাইকে সম্মিলিতভাবে ভূমিকা পালন করতে হবে।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন জনাব মো: মাহবুব আলম, উপ-পরিচালক, স্থানীয় সরকার,বরগুনা। সভাপতি মহোদয় বলেন স্থানীয় সরকারের শতশত বছরের ঐতিহ্যকে কাজে লাগিয়ে স্থানীয় পর্যায়ে আইনের মধ্যে থেকে বিচারিক সেবা পৌছে দিয়ে সাধারণ মানুষকে হয়রানির হাত থেকে রক্ষা করতে হবে। তিনি গত জানুয়ারী ২০১৭ থেকে বাংলাদেশে গ্রাম আদালত সক্রিয়করণ (২য় পর্যায়) প্রকল্প বরগুনা জেলার ০৪টি উপজেলার (আমতলী, বামনা, পাথরঘাটা ও বেতাগী) ২৫টি ইউনিয়নে বাস্তবায়িত হচ্ছে। প্রকল্পভুক্ত এসব উপজেলায় গত জুলাই ২০১৭ হতে মার্চ ২০১৯ পর্যন্ত মোট ২৫২৯টি মামলা গ্রাম আদালতে গৃহীত হয়েছে, এর মধ্যে নিষ্পত্তি হয়েছে ৯৩% মামলা এবং ০৭% মামলা চলমান রয়েছে। গ্রাম আদালতকে আরো সক্রিয় করতে সবার সহোযোগিতার আহবান জানান।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here