কুয়াকাটায় সাংবাদিকের ভাগ্নের হাত ভেঙ্গে দিয়েছে সন্ত্রাসীরা

162

কুয়াকটা প্রতিনিধি।
কুয়াকাটার লতাচাপলী ইউনিয়নের আলীপুর এলাকায় শনিবার রাত ১১ টার দিকে মো.আবুল বাসার (২৪) নামে এক যুবকের বাম হাত ভেঙ্গে দিয়েছে সন্ত্রাসীরা। পাওনা টাকা দিতে দু’দিন বিলম্ব হওয়ায় দ্বিগুণ না দেয়ায় এ হামলা চালানো হয়। গুরুতর অবস্থায় আবুল বাসার কে উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্্ের ভর্তি করা হয়েছে। সে ব্ংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম (বিএমএসএফ)’র কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সম্পাদক ও কুয়াকাটা প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মো.মিজানুর রহমানের ভাগ্নে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।
স্থানীয়দের সূত্রে জানা গেছে, আবুল বাসারের নানী গত ২৭ মে, সোমবার মৃত্যুবরণ করেন। এ খবর শুনে আবুল বাসার আলীপুরে তার নানীকে দেখতে আসে। আলীপুরের থ্রি-পয়েন্ট এলাকার ব্যবসায়ী বসারের কাছ থেকে ৬০০ টাকার মালামাল বাকীতে কিনে নেয়। তিন দিন পর টাকা ৬০০ দিতে গেলে সন্ত্রাসী ব্যবসায়ী বসার টাকা দিতে দেরী হওয়ায় দ্বিগুণ টাকা হিসেবে ১ হাজার ২০০ টাকা দাবী করে। এ নিয়ে কথাকাটির এক পর্যায়ে বসন্ত্রাসী বসারের নেতৃত্বে রিয়ান মোল্লা ও নোমান মুসুল্লী সহ অজ্ঞাত আরো ৫/৭ জনের একদল সন্ত্রাসীরা তাকে দেশীয় অস্ত্র লোহার রড, দা, ছেনা ও বাশের লাঠি (চ্যারা) দিয়ে এলাপাথাড়ি পিটিয়ে তার বাম হাত ভেঙ্গে দেয়। এছাড়া শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাত করে।
স্থানীয় সূত্রে আরও জানাযায়, সন্ত্রাসীদের মধ্যে কয়েকজনে লোহার রড, দা, ছেনা দিয়ে পিটিয়ে মাটিতে ফেলে ধরে রাখে এবং বখাটে বসার পিটাতে থাকে। আবার বসার নোমান ও তাদের কয়েকজন সহয়োগি তাকে মাটিতে েবধে রাখে এবং রিয়ান মোল্লা পিটাতে থাকে এভাবে একের পর এক পিটিয়ে হাত ভেঙ্গে ফেলে এবং আহত আবুল বাসারের পকেটে থাকা নগদ ২৫,০০০/-(পঁচিশ হাজার) টাকা ও প্যান্টের পকেটে থাকা ১টি আইটেল এন্ড্রয়েট মোবাইল সেট (যাহার মূল্য ৭,৫০০/-(সাত হাজার পাঁচশত) টাকা সহ একটি হাত ঘড়ি ছিনিয়ে নিয়ে যায়।
আহত আবুল বাসারের মামা কুয়াকাটা প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মো.মিজানুর রহমান জানান, ব্যবসায়ী বসার তার ভাগ্নে আবুল বাসারের পরিচিত ছিল। তার দোকান থেকে মালামাল নিয়ে তিনদিন পর টাকা দেয়ার কারণে দ্বিগুণ টাকা দাবী করে সন্ত্রাসীরা এ হামলা চালায়।
লতাচাপলী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ আনছার উদ্দিন মোল্লা জানান, বিষয়টি তিনি জেনেছেন, এবং তাৎক্ষনিক সে সরেজমিনে গিয়ে আহত আবুল বাসারকে চিকিৎসার জন্য কলাপাড়া প্রেরণ করেন।
মহিপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো.সাইদুল ইসলাম জানান, অভিযোগ পেলে তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা নেয়া হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here