ঈদের আগেই আঘাত হানতে পারে ঘূর্ণিঝড় ‘বায়ু’

82
মোঃ হানিফ, কুয়াকাটা প্রতিনিধি ।।
২৬ মে থেকে ৩ জুনের মধ্যে বঙ্গোপসাগরে সৃষ্টি হতে পারে আরেকটি ঘূর্ণিঝড়। এটির নাম রাখা হয়েছে ‘বায়ু’। সার্ক আবহাওয়া কেন্দ্র সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। তবে এ ঘূর্ণিঝড় ঠিক কোথায় প্রভাব ফেলবে, তা এখনো জানা যায়নি। বুধবার সকাল থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার পূর্বাভাসে বলা হয়, দেশের ফরিদপুর, গোপালগঞ্জ, কুতুবদিয়া, রাজশাহী, পাবনা ও দিনাজপুর অঞ্চলসহ খুলনা বিভাগের ওপর দিয়ে মৃদু তাপপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে এবং তা অব্যাহত থাকবে।
অন্যদিকে সারাদেশে দিন এবং রাতের তাপমাত্রা সামান্য বৃদ্ধি পেতে পারে। আবহাওয়াবিদ আরিফ হোসেন জানান, দেশব্যাপী দাবদাহ আরও দুতিন দিন থাকতে পারে। আগামী রবি বা সোমবার হালকা বৃষ্টি হতে পারে। ঘূর্ণিঝড় ফণীর পর চলতি মাসে বঙ্গোপসাগরে আরও একটা নিম্নচাপের আশঙ্কা করছে বাংলাদেশের আবহাওয়া অধিদপ্তর। এ মুহূর্তে বয়ে যাচ্ছে তীব্র দাবদাহ। তাপমাত্রা ছাড়াতে পারে ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের বেশি।
গতকাল ঢাকায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৫.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস ও সর্বনিম্ন ২৭.৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। চলতি মে মাসের আবহাওয়ার দীর্ঘমেয়াদি পূর্বাভাসে বলা হয়, এ মাসে উত্তর ও উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে একটি তীব্র তাপপ্রবাহ (৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের ওপরে) এবং অন্যত্র ১-২টি মৃদু তাপপ্রবাহ (৩৬-৩৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস) বা মাঝারি তাপপ্রবাহ (৩৮-৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াস) বয়ে যেতে পারে। সেই সঙ্গে দেশের উত্তর থেকে মধ্যাঞ্চলে ২-৩ দিন মাঝারি/তীব্র কালবৈশাখী এবং দেশের অন্যত্র ৩-৪ দিন হালকা/মাঝারি কালবৈশাখী হতে পারে। এ সময় শিলাবৃষ্টিও হতে পারে।
শুক্রবার সকালে আবহাওয়া অধিদপ্তর এক বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে, ঢাকা, রাজশাহী ও খুলনা বিভাগের উপর দিয়ে বয়ে যাওয়া মৃদ থেকে মাঝারি ধরনের তাপপ্রবাহ অব্যাহত থাকার মাঝে আগামী তিনদিনের মধ্যে বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। ওই বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, রংপুর, ময়মনসিংহ ও সিলেট বিভাগের দু’এক জায়গায় দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। এছাড়া দেশের অন্যত্র অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলা আকাশসহ আবহাওয়া প্রধানত শুষ্ক থাকতে পারে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here